উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই

0

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই। ফরাসি প্রথম ক্লাব হিসেবে ওল্ড ট্রাফোর্ডে জয় পেলো পিএসজি। শেষ ষোল’র প্রথম লেগ ম্যাচে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ২-০ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে এক পা দিয়ে রাখলো টমাস টাচেলের শিষ্যরা। গোল দুটি করেছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে ও প্রেসনেল কিমপেমবে। আরেক ম্যাচে পর্তুগিজ ক্লাব পোর্তোকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ইতালির রোমা।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে ইতিহাস গড়ার হাতছানি পিএসজির। জিতলেই ফরাসি প্রথম ক্লাব হিসেবে অন্যন্য রেকর্ড গড়ার সুযোগ টুখেলের শিষ্যদের। নতুন কোচ সোলশায়ারের অধীনে উজ্জীবিত ম্যানইউ।ইনজুরি আক্রান্ত ফরাসী ক্লাব পিএসজি। কিন্তু নিজেদের মাঠে ম্যানইউ ছিলো বিবর্ণ। ইনজুরির কারণে পিএসজির সেরা দুই তারকা নেইমার ও এডিনসন কাভানির একাদশে না থাকার ফায়দা লুটতে পারেনি স্বাগতিকরা।

যদিও প্রথমার্ধে সমান আধিপত্য দেখায় দু’দল। গুছিয়ে আক্রমণে ম্যানইউ ও পিএসজি। তবে জালের ঠিকানা খুজে পাননি কেউই। পল পগবাদের মতো সাফল্য পাননি এমবাপ্পেরাও। প্রথমার্ধে নিজেদের জাল সুরক্ষিত রাখলেও বিরতির পর অথিতিদের সাথে আর পেরে ওঠেনি সোলশায়ারের শিষ্যরা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সাফল্য পায় পিএসজি। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার কর্নার থেকে বল জালে জড়ান প্রেসনে কিমপেমবে।

গোল হজমে নড়েচরে বসে রেডডেভিলরা। যদিও প্রতিপক্ষের দুর্গ ভাঙ্গতে পারেনি পগবা-রাশফোডরা। উল্টো ৭ মিনিটের ব্যবধানে আবারও উল্লাসে মাতে পিএসজি। এবারও সহযোগির ভূমিকায় ডি মারিয়া। ঠান্ডা মাথায় ব্যবধান দ্বিগুন করেন ফরাসী তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে।
শেষ মুহূর্তে পল পগবার লাল কার্ডে নাটকীয়তা বাড়ালেও পরিবর্তন হয়নি ম্যাচের ফলাফল। চেষ্টা করেও আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ব্যবধান বাড়াতে পারেনি পিএসজিও। ফলে ২-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে টমাস টুখেলের দল। ফিরতি লেগে আগামী ৬ মার্চ মুখোমুখি হবে দু’দল।

পিএসজির জয়ের রাতে জিতেছে রোমা। রাউন্ড অব সিক্সটিনের আরেক ম্যাচে নিকোলো দানিলোর জোড়া গোলে পর্তুগিজ দল পোর্তোকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে ইতালিয়ান ক্লাবটি। উত্তেজনায় ভরা থাকলেও প্রথমার্ধে গোলের দেখা পায়নি কোন দল। দ্বিতীয়ার্ধে লিড নেয় রোমা। ৭০ মিনিটে এগিয়ে যায় ইতালিয়ান ক্লাবটি। ৬ মিনিটের ব্যবধানে দ্বিতীয় গোল হজম করে পোর্তো। তিন মিনিট পর এক গোল শোধ দিলেও পরাজয় এড়াতে পারেনি পর্তুগিজ ক্লাবটি।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন