প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনে, পর্দা উঠলো অমর একুশে গ্রন্থমেলার

0

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যে জাতি রক্তের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জন করেছে, তার মাথা নত হতে দেবে না সরকার। বিকেলে, বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গনে অমর একুশে গ্রন্থমেলার উদ্বোধনীতে তিনি বলেন, দেশের কৃষ্টি ও শিল্প-সাহিত্যকে বিশ্বের দরবারে পৌঁছে দেয়ার জন্য সরকার কাজ করছে। পরে, মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মুজিববর্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উৎসর্গ করার মধ্যে দিয়ে শুরু হলো মাসব্যাপি অমর একুশে গ্রন্থমেলা। বিকেলে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গনে বাঙালির প্রাণের মেলা উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতীয় সংগীতের মধ্যদিয়ে শুরু হয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এরপর শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ১০ জনের হাতে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পদক ও সম্মাননা তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

পরে বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা তৃতীয় গ্রন্থ “আমার দেখা নয়া চীন” এর মোড়ক উন্মোচন করেন শেখ হাসিনা। মুজিববর্ষ উপলক্ষে এবার বঙ্গবন্ধুর জীবন নিয়ে ১০০টি নতুন বই প্রকাশিত হচ্ছে বাংলা একাডেমি থেকে। বক্তব্যের শুরুতেই পদকপ্রাপ্তদের অভিনন্দন জানান শেখ হাসিনা। বলেন, ভাষা আন্দোলনের হাত ধরেই স্বাধীনতা অর্জনের পথে যাত্রা শুরু করে বাঙালি জাতি। ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস থেকে জাতির পিতার নাম মুছে ফেলার অপচেষ্টা চালানো হলেও তা ব্যর্থ হয়েছে।

দেশের যাবতীয় অর্জন লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, সেই মর্যাদা রক্ষা করতে বিশ্বের কারো কাছে দেশের মাথানত হতে দেবে না সরকার। বর্তমান সরকারের আমলেই ২১শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মর্যাদা পায় জানিয়ে দেশের ইতিহাস, কৃষ্টি ও শিল্প সাহিত্যকে বিশ্বের কাছে পৌঁছে দেয়ার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী। পরে, অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২০ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন