অনুমোদন ছাড়াই রাজশাহীতে সাত বছর ধরে চলছে শাহ মখদুম মেডিকেল কলেজ

0

অনুমোদন ছাড়াই রাজশাহীতে সাত বছর ধরে চলছে শাহ মখদুম মেডিকেল কলেজ। এরই মধ্যে এক বছর আগে এমবিবিএস পাস করে বেরিয়ে গেছে প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। কিন্তু বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল-বিএমডিসির অনুমোদন নেই। এতে অনিশ্চিতার মুখে পড়েছে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী। এমবিবিএস পাস করেও অনেকেই চিকিৎসায় জড়িত হতে পারছে না। একারণে লাগাতার আন্দোলনে নেমেছে তারা। টানা এক সপ্তা অচলাবস্থার কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে রাজশাহীর শাহ মখদুম প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ।

বেসরকারী মেডিকেল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনা নীতিমালা অনুযায়ী শিক্ষার্থীরা প্রথম প্রফেশনাল পরীক্ষায় অবতীর্ণ হওয়ার আগেই কলেজ কর্তৃপক্ষকে নিজ উদ্যোগে বিএমডিসির রেজিস্ট্রেশন নেয়া বাধ্যতামূলক। অথচ এক বছর আগে পাস করা শিক্ষার্থীরা এখনো বিএমডিসির রেজিস্ট্রেশন না পাওয়ায় ইন্টার্ন করতে পারছে না। এ অবস্থায় কলেজ কর্তৃপক্ষকে দায়ী করে আন্দোলনে নেমেছে শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, মেডিকেল কলেজের নামে বাণিজ্য চলছে এখানে।

শিক্ষার্থীদের টানা এক সপ্তাহের আন্দোলনে অচল হয়ে পড়ে মেডিকেল কলেজের শিক্ষাকার্যক্রম। আন্দোলনকারীদের তোপের মুখে পড়ে শনিবার অনির্দিষ্টকাল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের ডীন জানিয়েছেন, মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণে এই সংকট তৈরি হয়েছে। এখান থেকে পাস করা শিক্ষার্থীরা চিকিৎকের স্বীকৃতি পাবে না।

২০১৩ সালের নভেম্বরে শাহ মখদুম মেডিকেল কলেজের একাডেমিক অনুমোদন দেয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এর মাত্র আড়াই মাসের মাথায় অনুমোদন স্থগিত করা হয়। তবে ১০মাস পর স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার হলে ২০১৪ শিক্ষাবর্ষে শিক্ষার্থী ভর্তি নেয়া হয় কলেজে। কিন্তু রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসা অনুষদের অধিভূক্ত না হয়েই শিক্ষার্থী ভর্তির দায়ে ২৫লাখ টাকা জরিমানা গুণতে হয় এই মেডিকেল কলেজকে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন