৪২ শতাংশ শিক্ষক পড়াচ্ছেন শুধু নিজেদের শেখা বিষয়গুলোই

0

দেশের প্রাথমিক পর্যায়ের ৪২ শতাংশ শিক্ষক, প্রায়োগিক ধারণা ছাড়াই শিশুদের শেখাচ্ছেন প্রতিদিন। পড়াচ্ছেন শুধু নিজেদের শেখা বিষয়গুলোই। শিশু শিক্ষার প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষকের হার মাত্র ৫৭ দশমিক সাত-তিন। শেখানোর গঁৎবাধা সেই পুরনো পদ্ধতির কারণে ঝরে পড়ছে অনেক শিশু। এসব সংকট বিবেচনায় সরকার দেশের বিভিন্ন এলাকায় ইতোমধ্যে গড়ে তুলেছে ৯৫০টি প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এই ছোট্ট শিশুটির বেড়ে ওঠা চার দেয়ালের অভ্যন্তরে প্রযুক্তি আর রকমারি খেলনা সামগ্রীর মাঝে। এরকম অনেক শিশুই এখন প্রযুক্তির সাহায্যে শিখছে, আর চিনছে তাদের পৃথিবী। কিন্তু প্রশ্ন ওঠছে, শিশুর পূর্ন বিকাশ কি হচ্ছে তাতে ! অর্থাৎ আবেগ, মেধা, ব্যবহার এবং যোগাযোগ দক্ষতা কতটুকু অর্জন করছে তারা।

পারিবারিকভাবে এবিষয়গুলো নিশ্চিত করার সময় এসেছে এখন, নইলে আগামীর প্রতিযোগিতামূলক দুনিয়ায় পিছিয়ে পড়তে হবে এ শিশুদের। বিকাশের পাশাপাশি শিশুর সুরক্ষা ও ঐতিহ্য শেখানোর বিষয়টিকেও এখন গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে নীতিনির্ধারনী মহলে।

পড়ালেখার প্রচলিত ধারনার কারণে যেন, শিশুর শৈশব বাধাগ্রস্থ না হয়, সে জন্যও কাজ শুরু করছে সরকার। সরকারের পাশাপাশি অভিভাবক ও সচেতন নাগরিকদের এখন শিশু উন্নয়নে নজর দিতে হবে, তবেই মেধাবী ও উন্নত বাংলাদেশ পাবো আমরা।

শেয়ার করুন।