সাত বছর পর সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি

0

দীর্ঘ সাত বছর পর সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি রপ্তানিতে যুক্ত হয়েছে আরও ৩৫টি নতুন পণ্য। এখন থেকে ৮২টি পণ্য আনা নেয়ার সুযোগ মিলেছে এ বন্দর দিয়ে। এতে ব্যবসা সম্প্রসারণ হওয়ায় খুশি ব্যবসায়ীরা। আর শ্রমিকদের কর্মসংস্থান বাড়ার পাশাপাশি রাজস্বও বৃদ্ধির কথা বলছেন বন্দর সংশ্লিষ্টরা।

১৯৯৬ সালের ১৫ মে ২১টি পণ্য নিয়ে শুল্ক স্টেশন হিসেবে ভোমরা স্থলবন্দর যাত্রা শুরু করে। ২০১০ সালে আরও ২৬টি পণ্য নতুন করে যুক্ত হয়। মোট ৪৭টি পণ্যের অনুমোদন নিয়ে এটি পুর্ণাঙ্গ স্থলবন্দরের মর্যাদা পায়। তবে ৪৭টি পণ্যের অর্ধেকই এই বন্দরে আসে না। আবার অধিকাংশ পণ্যের শুল্কও খুবই কম। তাই, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এ বছরের চলতি মাসের প্রথম সপ্তায় ভোমরা বন্দরে আরো নতুন ৩৫টি পণ্য আমদানি-রপ্তানির অনুমতি দেয়। এতে এই বন্দরের শ্রমিকদের জীবন মান উন্নয়ন হবে বলছেন স্থানীয়রা।

সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিশনের নেতারা বলছেন, সব পণ্য এই বন্দর দিয়ে দেশে প্রবেশের অনুমতি মিললে ব্যবসায়ীরা অবশ্যই ভোমরা স্থলবন্দরকেই বেছে নেবেন। কারণ এখানে পরিবহন খরচ অনেক কম।

নতুন করে ৩৫টি পণ্য আমদানি-রপ্তানিতে যুক্ত হওয়ায় রাজস্ব বহু গুণে বেড়ে যাবে বলে জানালেন রাজস্ব কর্মকর্তা।

ভারতের কোলকাতা থেকে ভোমরা স্থলবন্দরের দুরত্ব অনেক কম হওয়ায় এই বন্দরের গুরুত্ব বরাবরই অনেক বেশি। তাই আমদানি রপ্তানির নতুন পণ্য যুক্ত হওয়ায় তা অতি দ্রুত কার্যকর করার দাবি ব্যবসায়ীদের।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন