Site icon SATV

মাহে রমজানে রংপুরে অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে নিত্যপণ্যের বাজার

মাহে রমজানে রংপুরে অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে নিত্যপণ্যের বাজার। পেয়াজ, রসুন, আদা, বেগুন ছাড়া অন্যান্য সবজির বাজার স্থিতিশীল থাকলেও বেড়েছে চাল-ডাল, তোল-ছোলাসহ বেশকিছু নিত্যপণ্যের দাম। এতে বেকায়দায় পড়েছে নিম্ন আয়ের মানুষ। বিক্রেতাদের দাবী- করোনার প্রাদুর্ভাবে বাজারে পণ্যের সরবরাহ কমে যাওয়ায় বেড়েছে পণ্যের দাম।

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে হাঁসফাঁস অবস্থা নিম্ন আয়ের মানুষের। আর এরই মধ্যে রমজানকে ঘিরে আরেক দফা অস্থিতিশীল হয়ে পড়েছে নিত্যপণ্যের বাজার। গেল ক’দিনে পেঁয়াজ, আদার দাম বেড়েছে কয়েক দফা। আর ২০ টাকার বেগুন এখন বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকায়। যদিও স্থিতিশীল রয়েছে আলু, পটল, করলাসহ অন্যান্য সবজির দাম।

ডিমের দাম কমলেও গেল সপ্তাহের ১শ’ টাকা কেজির ব্রয়লার মুরগী বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকায়, দেশী মুরগী ৪৩০ টাকা। গরু ও খাসির মাংশের দাম স্থিতিশীল থাকলেও বেড়েছে চাল, ডাল, তেল ও ছোলার দাম।

বিক্রেতারা বলছেন, করোনার প্রাদুর্ভাবে মালামালের সরবরাহ ঠিক না থাকায় বেড়েছে বেশকিছু পণ্যের দাম। তবে তারা বলছেন, সরবরাহ বাড়লে কয়েক দিনের মধ্যেই স্থিতিশীল হতে পারে নিত্যপণ্যের বাজার। তবে বৈশ্বিক এই দুর্যোগে নিম্ন আয়ের মানুষকে দ্রব্যমূল্যের কষাঘাত থেকে বাঁচাতে বাজার স্থিতিশীল রাখতে প্রশাসনের মনিটরিং জোরদারের দাবী ক্রেতাদের।

Exit mobile version