মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন করেছে সরকার

0

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে পরিত্যক্ত ও নির্জন কারাগারে রেখে– মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন করেছে সরকার। এমন অভিযোগ, বিএনপি নেতাদের। সরকার গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করেছে বলেও তাদের দাবি। তবে জনগণের উত্তাল আন্দোলনে, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার ঘোষণা দেন, বিএনপি নেতারা। নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে ‘অবস্থান কর্মসূচি’তে এসব বলেন তারা। দেশে আর কোন একতরফা নির্বাচন হতে দেয়া হবে না বলেও হুঁশিয়ারি তাদের।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালনে– পুলিশের অনুমতি না পেয়ে– ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে করার সিদ্ধান্ত নেয় দলটি। সেখানেও বাধা দেয়, পুলিশ ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন কর্তৃপক্ষ। এ অবস্থায় সকালে নয়াপল্টনে, কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয় বিএনপির নেতাকর্মীরা। সাড়ে দশটার মধ্যেই এখানকার সড়ক কানায়-কানায় ভরে যায়।

অবস্থান কর্মসূচির উদ্বোধন শেষে, অনুমতি নিয়ে জটিলতা হওয়ায় সরকারের সমালোচনা করেন দলটির নেতারা। পরে তারা বলেন, মানুষের অধিকার কেড়ে নিতেই খালেদা জিয়াকে আটক করা হয়েছে। বিএনপিকে ভাঙ্গার সাধ্য কারো নেই বলেও হুঁশিয়ারি দেন নেতারা। খালেদা জিয়ার বিষয়ে জেল কোডের তোয়াক্কা করছে না সরকার, জানিয়ে এর সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানান বিএনপি নেতারা।

পরে দলটির মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়াকে নির্জনস্থানে কারাবাসে রেখে– সরকার মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে। তবে জনগণ তাদের নেত্রীকে শিগগিরই মুক্ত করে, একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করবে বলে মনে করেন তিনি। সরকার গণবিচ্ছিন্ন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের আর ক্ষমতায় থাকার কোন নৈতিক অধিকার নেই বলেও মন্তব্য করেন বিএনপি নেতারা।

শেয়ার করুন।