বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজি বন্ধের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে হিজড়া নেতারা

0

রাস্তাঘাট, বাস, ট্রেন, লঞ্চ স্টেশনসহ বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজি বন্ধের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে হিজড়া নেতারা। যদিও তাদের দাবি, প্রকৃত হিজড়ারা এসব অপরাধ কর্মকান্ডের সঙ্গে যুক্ত নয়। তাই এ ধরণের অপকর্ম বন্ধে প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেন তারা। সকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তার বাসভবনে সাক্ষাৎ করে এই প্রতিশ্রুতি দেয় হিজড়া নেতারা । এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাদেরকে অপরাধমূলক কর্মকান্ড থেকে সরে আসার পাশাপাশি কর্মসংস্থান ও পূনর্বাসনের আশ্বাস দেন।

বাজার থেকে ৫-১০ টাকা করে নেয়া , বিয়ে বাড়ি কিংবা কারো সন্তান জন্ম নিলে নেচে গেয়ে অভিভাবকদের খুশি করে চাঁদা নেয়ার অতীত রেওয়াজ ছিলো- তা এখন মানছেন না অনেকেই। অতীত রীতি থেকে বেরিয়ে তারা জড়িয়ে পড়ছে নানা অপরাধমূলক কর্মকান্ডে। হিজড়াদের অনৈতিক কর্মকান্ডের এমন অসংখ্য ভিডিও রয়েছে ইউটিউব, ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ব্যক্তিগত কিংবা গণপরিবহন, ট্রেন, লঞ্চের পাশাপাশি পথচারিদের কাছ থেকেও চাঁদা দাবি করে হিজড়ারা । খোদ জাতীয় সংসদেও তাদের এসব কর্মকান্ডের জন্য ক্ষোভ জানিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন বেশ ক’জন সংসদ সদস্য।

তৃতীয় লিঙ্গের এই জনগোষ্ঠীর অবৈধ কর্মকান্ডগুলো প্রতিরোধে সক্রিয় হয়েছে প্রশাসন। এরই অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার সকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসভবনে ডাকা হয় হিজড়া নেতাদের। তবে অতীত রীতি-নীতি ভঙ্গ করে যারা এসব অবৈধ কর্মকান্ডে যুক্ত– তারা প্রকৃত হিজড়া নয় বলে দাবি, নেতাদের। হিজড়াদের সুনাম ক্ষুন্ন হয় এমন কর্মকান্ড প্রতিরোধে প্রশাসনের সহায়তা চান তারা। সমাজসেবা অধিদপ্তরের জরিপ বলছে, দেশে প্রকৃত হিজড়া সংখ্যা প্রায় দশ হাজার।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন