প্রধান বিচারপতির সামনেই শ্লোগান আর করতালির মাধ্যমে হট্টগোল

0

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জামিন শুনানী পেছালে আদালতে প্রধান বিচারপতির সামনেই শ্লোগান আর করতালির মাধ্যমে হট্টগোল করেন আইনজীবীরা। হট্টগোলের কারণে অনেকটাই নিষ্ক্রিয় ছিলেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ৬ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ। এর মাঝে সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গনে পাল্টাপাল্টি মিছিলে ছড়িয়েছে উত্তাপ। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, পুরো ঘটনার দায় নিতে হবে অ্যাটর্নি জেনারেলকে। অন্যদিকে, অ্যাটর্নি জেনারেলসহ ক্ষমতাসীন দলের আইনজীবীরা বলেন, আদালত অবমাননার দায়ে বিএনপি’র আইনজীবীদের বিচারের মুখোমুখি করা এখন প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব।

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এভাবেই আদালত প্রাঙ্গনে মিছিল করেন বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা।

অন্যদিকে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতির কক্ষের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন ক্ষমতাসীন দলের আইনজীবীরা।

এর আগে, বৃহস্পতিবার সকালে আপিল বিভাগের পূর্নাঙ্গ বেঞ্চে শুরু হয় জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের শুনানি। এসময় খালেদা জিয়ার সবশেষ শারীরিক অবস্থা জানাতে আরো সময় চায় বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ। এক সপ্তাহ সময় দেয় সর্বোচ্চ আদালত। আদেশ ঘোষণার সাথে সাথে আদালতের ভেতর শ্লোগান ও হট্টগোল শুরু করে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা।

পরে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে, বিএনপি আইনজীবীদের বিক্ষোভকে নজীরবিহীন এবং আদালত অবমাননা যোগ্য অপরাধ বলে দাবি করে ক্ষমতাসীন দলের আইনজীবীরা।

এর আগে, একই স্থানে ডাকা সংবাদ সম্মেলনে বিএনপপন্থীরা আইনজীবীরা দাবি করেন, ঘটনার দায় অ্যাটর্নি জেনারেলকে নিতে হবে।

চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত বছর ২৯ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেয় বিচারিক আদালত।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন