প্রতিবছরের মত এবারও বাজেট নিয়ে বিভিন্ন পেশার মানুষের মধ্যে আলাপ আলোচনা চলছে

0

প্রতিবছরের মত এবারও বাজেট নিয়ে বিভিন্ন পেশার মানুষের মধ্যে আলাপ আলোচনা চলছে। চুয়াডাঙ্গাবাসীর প্রত্যাশা শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি ও যোগাযোগ খাতকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। গ্রামকে শহরে রুপান্তরিত করতে হলে জেলা ভিত্তিক বাজেট তৈরীর প্রয়োজনীয়তার কথা আলোচনায় আসছে।

২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেট নতুন অর্থমন্ত্রীর প্রথম বাজেট হওয়ায় চুয়াডাঙাবাসীর প্রত্যাশা অনেক বেশী। বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি ও যোগাযোগ খাতকে বেশি অগ্রাধিকার দেয়ার প্রয়োজন বলে মনে করেন। পাশাপাশি চলতি মৌসুমে কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পণ্যের মূল্য না পাওয়ায়, ক্ষতি কাটিয়ে তুলতে হলে এ বাজেটে কৃষিতে ভর্তূকি দেয়া জরুরি বলেও মনে করছে প্রান্তিক জনগণ।

ব্যবসা গতিশীল করতে হলে এবারের বাজেটে ব্যাংকের সুদের হার ওয়ান ডিজিটে আনাসহ ভ্যাটের পরিধি বাড়িয়ে ভ্যাট চার্জ কমানোর দাবি ব্যবসায়ীদের। বাজেটে গ্রামকে প্রধান্য দেয়ায় নাগরিক সুবিধা নিশ্চিতের দাবি স্থানীয়দের। মফস্বল শহরগুলোতে যে পরিমান বরাদ্দ দেয়া হয়, তা অপ্রতুল। আবার তা নির্ধারিত সময়ে ব্যয় না হলে, পরবর্তীতে নির্দিষ্ট খাতে ব্যায় বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা জানান এই শিক্ষাবিদ। মানবসম্পদ উন্নয়নে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কৃষি খাতে বরাদ্দ বাড়ানো দরকার। এছাড়া, বাজেটে দেশের তরুণদের বিবেচনায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন চুয়াডাঙাবাসী।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন