পুলিশের ডিআইজি মিজান গ্রেফতার না হওয়ায় আপিল বিভাগের ক্ষোভ

0

পুলিশের ডিআইজি মিজানকে কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে না- দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবীকে এমন প্রশ্ন করেছেন খোদ প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। আপিল বিভাগের শুনানিতে প্রধান বিচারপতি এই প্রশ্ন তুলেন। এসময় দুদকের বর্তমান কার্যক্রম অ্যালার্মিং বলেও বলেও মন্তব্য করেন সর্বোচ্চ আদালত। জবাবে দুদকে আইনজীবী বলেন, অভিযুক্ত ব্যক্তি যত ক্ষমতাবানই হোক, দুদক কাউকে ছাড় দেয় না। পাশাপাশি শিগগির আলোচিত এই মামলাটির তদন্ত শেষ হবে বলেও আদালতকে আশ্বস্ত করেন খুরশীদ আলম খান।

সম্প্রতি দুর্নীতির অভিযোগ থেকে রেহাই পেতে পুলিশ সদর দপ্তরে ওএসডি হয়ে থাকা ডিআইজি মিজান এবং দুদক কর্মকর্তা খন্দকার এনামুল বাসিরের ফাঁস হওয়া ফোনালাপ দেশজুড়ে তৈরি করেছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। অভিযোগ উঠে মিজানুর রহমানকে দায়মুক্তি দিতে ৫০ লাখ টাকা ঘুষ নেয়ার জন্য ‘চুক্তি’ করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসির।

এমন বাস্তবতায় প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে শুনানি শুরু হয় আপিল বিভাগের শুনানি। দুর্নীতির মামলায় হলমার্কের জেসমিন ইসলামকে দেয়া হাইকোর্টের জামিনের বিরুদ্ধে লিভ আপিলের শুনানিতে আপিল বিভাগে যান দুদক আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। এসময় উঠে আসে ডিআইজি মিজানের ঘুষ দেয়ার স্বীকারোক্তির প্রসঙ্গ।

পাশাপাশি হলমার্ক চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলামকে দেয়া হাইকোর্টের জামিন বাতিল করে আত্মসম্পর্ণের নির্দেশও দেয় আপিল বিভাগ।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন