আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে বছরে ৮২০০ কোটি টাকা আয় সম্ভব

0

দেশে এখন বেকারের সংখ্যা ২৭ লাখ। এমন তথ্য দিয়েছে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো। চাকরির প্রচলিত বাজার সংকুচিত হওয়ায় দিন দির বাড়ছে বেকারত্বের সংখ্যা।এমন প্রেক্ষাপটে ফ্রিল্যান্স আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে কমপক্ষে ২০ হাজার প্রশিক্ষিত ফ্রিল্যান্সার তৈরি করতে পারলে ২০২১ সালের মধ্যে বছরে এখাত থেকে বাংলাদেশের ৮ হাজার ২ শ কোটি টাকা আয় সম্ভব বলে মনে করছেন প্রযুক্তিবিদরা।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসেবে, উচ্চশিক্ষিতদের মধ্যে বেকারত্বের হার সবচে’ বেশি—৯ শতাংশ। আর ১৫ থেকে ২৪ বছর বয়সী কর্মক্ষম তরুণ-তরুণীর ১০ শতাংশের বেশি বেকার। সমাজ বিজ্ঞানীদের মতে, কাজের সুযোগ না থাকায় অসংখ্য বেকার যুবক হতাশা থেকে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

অথচ, ১৩ কোটিরও বেশি মোবাইলফোন ব্যবহারকারীর দেশ, বাংলাদেশে এখন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ৬ কোটিরও বেশি। এই সুযোগকে ব্যবহার করে ই-গভর্নেন্স, ই-এডুকেশন, ই-কমার্স থেকে শুরু করে অনলাইনে বিভিন্ন শাখায় ব্যবসার অপার সম্ভাবনা রয়েছে। পাশাপাশি ফ্রিল্যান্স বা আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক বাজারের জন্য দক্ষ ফ্রিল্যান্সার তৈরী করতে পারলে বাংলাদেশের আয় হবে হাজারো কোটি ডলার।

এরইমধ্যে দেশের সাতটি বিভাগকে ই-জোন ঘোষণা করে প্রযুক্তি দক্ষ জনবল তৈরিতে কাজ শুরু করেছে সরকার বলে জানালেন তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী।

তবে প্রযুক্তিবিদদের মতে, ফ্রিল্যান্স পেশায় সফল হতে, আন্তর্জাতিক বাজারে নিজেকে তুলে ধরার মত কাজ জানার পাশাপাশি দক্ষতা তৈরি করতে হবে ইংরেজিতে যোগাযোগ।

শেয়ার করুন।