তীব্র গ্যাস সংকট

0

তীব্র গ্যাস সংকটে দিন কাটাচ্ছেন, পুরান ঢাকার শাঁখারী বাজার, কোর্ট-হাউস-ষ্ট্রিট আর রাজার দেউড়ি এলাকার বাসিন্দারা। সকাল হলেই কমে যায় গ্যাসের চাপ। তাই কখন চাপ বাড়বে; সে আশায় দিনভর গৃহিনীদের চোখ থাকে চুলার দিকে। গ্যাস বিল নিয়মিত পরিশোধ করেও, রান্নার জন্য জ্বালানি কাঠ, সিলিন্ডার গ্যাস, কেরোসিন এবং বৈদ্যুতিক হিটার ব্যবহার করছেন। এদিকে, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিও তাকিয়ে আছেন, তিতাস কর্তৃপক্ষের দিকে।

দেশের সব’চে ঘনবসতি পূর্ণ এলাকা হিসেবে পরিচিত পুরান ঢাকা। কখন গ্যাসের চাপ বাড়বে, তারপর হবে রান্না। এ যেন দুশ্চিন্তার আরেক নাম। সকালে শিশুদের নাস্তা এবং দুপুরে খাবারের নিশ্চয়তা নেই। আর মেহমান এলেতো সম্মান বাঁচানোই দায়।

স্থানীয়রা জানালেন, দফায়-দফায় গ্যাসের দাম বাড়লেও, কমেছে গ্যাসের চাপ। তাই প্রতি ঘরেই আছে লাকড়ি। আর কেরসিন ও বৈদ্যুতিক চুলায় বেড়েছে রান্নার জন্য খরচ। এ কারণে নতুন ভবনগুলোতেও থাকছে না ভাড়াটে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জানান, উনচল্লিশ বছর আগে জনসংখ্যার হিসেব বিবেচনায় আড়াই ইঞ্চি ব্যাসের পাইপে গ্যাস সরবরাহ শুরু হয়। যা সংস্কারের অভাবে এখন অচল প্রায়। ভুক্তোভুগিরা বলছেন, অনেক আশ্বাস পেয়েছে তারা; কিন্তু গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক কখনোই হয়নি।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন