ঢাকার বাইরে সরকার নির্ধারিত দামে কাঁচা চামড়া কিনছেন না ট্যানারি মালিকরা

0

বকেয়া পাওনা নিয়ে আড়তদারদের সঙ্গে বিরোধ মিটলেও ঢাকার বাইরে সরকার নির্ধারিত দামে কাঁচা চামড়া কিনছেন না ট্যানারি মালিকরা। এ কারণে পুঁজি হারানোর শংকায় রয়েছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। এবার লবন যুক্ত চামড়ার প্রতি বর্গফুটের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫-৪০ টাকা। যা গত বছরের তুলনায় প্রতি বর্গ ফুটে কমেছে ১০ টাকা। এ নিয়েও হতাশ ক্ষুদ্র চামড়া ব্যবসায়ীরা। ন্যায্য দাম নিশ্চিত করার পাশাপাশি সিন্ডিকেটের হাত থেকে রক্ষা করতে চামড়া রপ্তানির সিদ্ধান্ত চান তারা । কুষ্টিয়া, সাতক্ষীরা এবং সিলেট থেকে পাঠানো প্রতিবেদন।

ব্যবসায়ী, ফড়িয়া আর সাধারণ বিক্রেতাদের হাঁক-ডাকে কুষ্টিয়া শহরের এই চামড়া পট্টি থাকতো ঈদের পর দুই সপ্তাহ পর্যন্ত সরগরম। কিন্তু এবার ব্যতিক্রম। চামড়ার দাম নেই। ট্যানারী মালিকদের কাছে বকেয়া পাওনার কারণে চামড়া কিনছেন না কুষ্টিয়ার ব্যবসায়ীরা । বকেয়া পরিশোধ এবং চামড়া রপ্তানীর নীতিমালা প্রণনয়ের দাবী জানান কুষ্টিয়া চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির এই নেতা।

সাতক্ষীরায় ১৮ই আগস্ট থেকে সরকার নির্ধারিত দামে চামড়া ক্রয় করার কথা থাকলেও ট্যানারি মালিকরা কোন যোগাযোগ করছে না । এমন অভিযোগ স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ীদের। ঈদের আগে আড়ৎদারদের কাছ থেকে পাওনা না পাওয়া, লবনের দাম বৃদ্ধি, আর শ্রমিক সংকটে সিলেটে এবার অন্তত দুইলাখ চামড়া নষ্ট হয়েছে। ন্যায্য দাম না পাওয়া, লবনের উচ্চ মূল্য ও ট্যানারি মালিকদের কাছে থেকে বকেয়া আদায় না হওয়ায় চামড়ার বাজারে ধস নেমেছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। এখনই সরকার পদক্ষেপ না নিলে রপ্তানি পণ্য চামড়া সংরক্ষণ পেশা থেকে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা মুখ ফিরিয়ে নেবেন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন