জব্বারের বলী খেলার ১১০তম আসরকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত বন্দরনগরী চট্টগ্রাম

0

জব্বারের বলী খেলার ১১০তম আসরকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত বন্দরনগরী চট্টগ্রাম। এরইমধ্যে মঞ্চ তৈরি থেকে শুরু করে প্রায় ৭০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। আয়োজকরা জানান, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা কমপক্ষে দেড়’শো বলী অংশ নেবেন এই মল্লযুদ্ধে। আর চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী এই খেলাকে নির্বিঘ্ন করতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিতের কথা জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এদিকে, বলী খেলাকে ঘিরে আয়োজিত বৈশাখী মেলায় আসতে শুরু করেছেন দোকানিরা।

চট্টগ্রামের সিনেমা প্যালেস থেকে লালদিঘী, কিংবা নিউমার্কেট থেকে বক্সিরহাট পর্যন্ত রাস্তার দু’পাশের এই আয়োজনই জানান দিচ্ছে দরজায় কাড়া নাড়ছে জব্বারের বলী খেলা। ২৫ এপ্রিল বিকেলে লালদিঘির পাড়ে ঐতিহ্যবাহী এই খেলা শুরু হলেও মেলা বসে আশপাশের কয়েক কিলোমিটার এলাকা নিয়ে। এরইমধ্যে বসেছে দোকান; প্রস্তুতিও নিচ্ছেন অনেকে।

কী নেই জব্বারের এই বলীর মেলায়। থালা, বাসন, মাটির তৈজসপত্র, এমনকি চালন, কুলা, ডালা সবই মেলে। তবে মূল আকর্ষণ বলী খেলা। যার প্রস্তুতি শেষের দিকে। ৬০ জন বলী রেজিষ্ট্রেশনও করেছেন। আরো শতাধিক বলী তালিকাভুক্ত হবেন বলে জানালেন আয়োজকরা। বৃহত্তর চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী এই উৎসবকে নির্বিঘ্ন রাখতে নিজেদের প্রস্তুতির কথা জানালেন পুলিশের এই কর্মকর্তা। ব্রিটিশ শাসকদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে বাংলার দামাল ছেলেদের মল্মযুদ্ধের যে কৌশল শেখানোর উদ্যোগ নিয়েছিলেন আব্দুল জব্বার। কালের বিবর্তনে তা পরিণত হয়েছে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যে। বৃহত্তর চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন সময় বলী খেলাআয়োজন করা হলেও এই ঐতিহ্যের সবচেয়ে বড় আসরটি বসে লালদীঘী পাড়ে। ফুটেজ-৩

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন