চট্টগ্রামের আশংকাজনক হারে বাড়ছে মাদকের মামলা

0

চট্টগ্রামের বিভিন্ন আদালতে আশংকাজনক হারে বাড়ছে মাদকের মামলা। গত তিন মাসে করা মামলার ৬০ শতাংশই মাদক আইনে। কিন্তু নিস্পত্তির পরিমাণ প্রায় শূন্য। এতে দীর্ঘ হচ্ছে মামলা জট, বাড়ছে বিচার প্রত্যাশীদের ভোগান্তি। পুলিশ ও আইনজীবীরা বলছেন, বিচারক সংকট ও সমন্ময়হীনতার কারণেই ধীরগতিতে চলছে মামলা নিষ্পত্তি প্রক্রিয়া। আর সংকট নিরসনে, আলাদা আদালত চায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।

চট্টগ্রাম জেলা ও মহানগর দায়রা জজের অধীনে বিভিন্ন আদালতে বিচারাধীন মামলা রয়েছে প্রায় ৯০ হাজার। এরমধ্যে ২৫ হাজারই মাদক আইনের মামলা। আর ৮ হাজার মামলার বাদীই মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। বাকি গুলো পুলিশ, রেব, বিজিবিসহ অন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর। বিচারাধীন এসব মামলার মধ্যে ৫ থেকে ১০ বছরের পুরোনো মামলাও রয়েছে। পুলিশ বলছে, স্বাক্ষীদের উপস্থিতি আর সমন্ময়হীনতার কারনেই দীর্ঘায়িত হচ্ছে এসব মামলা।

আইন অনুযায়ী, মাদক আইনে মামলা দায়েরের ১৫ দিনের মধ্যে আদালতে চার্জশিট জমা দেয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। কিন্তু আদালতে বিচারক সংকটসহ বিভিণ্ন কারণে মামলা নিস্পত্তিতে জটিলতা তৈরি হয় বলে জানান এই পাবলিক প্রসিকিউটর।

মাদকের বিরুদ্ধে গেল দু’মাস ধরে চলা বিশেষ অভিযানে কয়েকহাজার মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হয়েছে। তাই বিশেষ আদালত স্থাপন করে মাদকের মামলা দ্রুত নিস্পত্তির পরামর্শ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের এই কর্মকর্তা।

বর্তমানে চট্টগ্রামই মাদকের গোল্ডেন রুট হিসেবে পরিচিত। কক্সবাজারের টেকনাফ, বান্দরবান, ফেনী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে চট্টগ্রাম হয়ে অন্তত ১০ ধরণের মাদক ছড়িয়ে পড়ছে সারা দেশে। তাই মাদকের এই নীল থাবা থেকে বাঁচতে বিচারের দৃষ্টান্ত স্থাপনের বিকল্প নেই বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন