কোনভাবেই থামছে না ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুকুর ভরাট

0

কোনভাবেই থামছে না ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুকুর ভরাট। জেলা প্রশাসনের নোটিশ, মোবাইল কোর্ট, এমনকি পরিবেশ অধিদপ্তরের মামলাও থামাতে পারছে না পুকুর ভরাটকারীদের। বিভিন্ন কৌশলে প্রকাশ্যে ও রাতের আধারে চলছে পুকুর ভরাট। একারণে পুকুর শূন্য হয়ে পড়ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর।

আপাত দৃষ্টিতে খেলার মাঠ মনে হলেও এটি একটি পুকুর। ২০১২ সালে পুকুরটি ভরাট করা হয়। এরপর থেকে পরিবেশ আদালতে মামলা চলছে। পরিবেশ আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে এভাবেই চলছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুকুর ভরাট।সবশেষ পৌর মেয়রের আত্মীয় গোলাপ মিয়া শহরের কোর্ট রোডে একটি পুকুর ভরাট করছেন।

এদিকে, নাগরিকদের অধিকারের একাধিক সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান থাকলেও পুকুর ভরাটের বিষয়ে নিরব তারা। আর ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা না থাকার কারণেই তাৎক্ষণিকভাবে পুকুর ভরাট বন্ধ করা যাচ্ছে না, জানায় পরিবেশ অধিদপ্তর। 

এদিকে, জেলা প্রশাসন বলছে, অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তবে পরিবেশ অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসনের কথার সাথে দ্বিমত পোষণ করেন এই আইনজীবী। বর্তমান আইনেই পুকুর ভরাট রোধ করা সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

এখন সরকারের উচ্চ পর্যায়ের হস্তক্ষেপই পারে পুকুরভরাট রোধ করে পরিবেশ বাঁচাতে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন