কোটা সংস্কারের পক্ষে-বিপক্ষে সংবাদ সম্মেলন ও সমাবেশ

0

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের পক্ষে-বিপক্ষে, রাজধানী ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন ও সমাবেশ হয়েছে। কোটা সংস্কারের দাবিতে দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসে, সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। আর সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটি– কোটা বিরোধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছে।

চাকুরিতে মুক্তিযোদ্ধা, উপজাতি ও প্রতিবন্ধিসহ কয়েক বিভাগে প্রায় ৫৬ ভাগ নিয়োগ হচ্ছে কোটার ভিত্তিতে। অন্যদিকে ৪৪ শতাংশ মেধার ভিত্তিতে চাকুরিতে নিয়োগ দেয়া হয়। এতে বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী শিক্ষাজীবন শেষে বেকার হয়ে পড়ছে। অন্যদিকে, কোটার অধিকাংশই পূরণ হয় না যোগ্য প্রার্থীর অভাবে। তাই বৈষম্য দাবি করে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন করছে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ নামে শিক্ষার্থীরা।

রোববার দুপুরে বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী এই কোটা সংস্কারের দাবিতে জড়ো হয় টিএসসির সামনে। একইসঙ্গে, আন্দোলনকারীদের নামে পুলিশের দেয়া মামলা প্রত্যাহারের দাবিও জানায় তারা।

দেশকে মেধাহীন এবং বেকারত্বের দিকে ঠেলে দেয়ার অভিযোগ তুলে শিক্ষার্থীরা ৫৬ শতাংশ কোটাকে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনার দাবি জানান। চলমান আন্দোলনের অংশ হিসেবে— আগামী ২৫ মার্চ পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা এবং ২৯ মার্চ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নাগরিক সমাবেশের কর্মসূচি দিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

এদিকে, কোটা’র বিরুদ্ধে অবস্থানকারীরা স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি উল্লেখ করে– তাদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে আইনী পদক্ষেপ নিতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছে একটি সংগঠন। মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সুরক্ষা দিতে আইন প্রণয়নের পাশাপাশি কোটা পদ্ধতির যথাযথ বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

কোটা বাস্তবায়নে পিএসসি’র ২০১৬ সালের সুপারিশ বাস্তবায়নের দাবিও তুলেছে সংগঠনটি।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন