কংগ্রেসের পুনরুজ্জীবনের চেষ্টায় সর্বভারতীয় এই সংগঠনে বড় ধরনের রদবদল করেছেন দলটির সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী।

নতুন কেন্দ্রীয় কমিটিতে একদিকে নবীনদেরকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে, পাশাপাশি বিদ্রোহীদের দেয়া হয়েছে কঠোর বার্তা। এছাড়া দল পরিচালনার কাজে সোনিয়াকে সহযোগিতা করার জন্য ছয় সদস্যের একটি বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সবাই রাহুল-ঘনিষ্ঠ। সাধারণ সম্পাদক পদে বৃদ্ধতন্ত্রের ভার কমানো হয়েছে। গোলাম নবী আজাদ, মল্লিকার্জুন খার্গে, অম্বিকা সোনি, মতিলাল ভোরা, লুইজিনো ফালেরিওর মতো বর্ষীয়ান নেতাদের সরিয়ে নবীনদের জায়গা দিয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী। সংগঠনকে পোক্ত করতে বিভিন্ন রাজ্যের দায়িত্বে নতুন এআইসিসি-র সাধারণ সম্পাদক নিয়োগ করেছেন সোনিয়া। পদ পরিবর্তনে যাদের দায়িত্ব বেড়েছে, তারা রাহুল গান্ধীর আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত। ঢেলে সাজানো প্রক্রিয়ায় ‘টিম রাহুল’ প্রাধান্য দিয়ে দলের ভবিষ্যত নেতৃত্ব সম্পর্কে স্পষ্ট বার্তা দিয়েছেন সোনিয়া গান্ধী। সম্প্রতি কংগ্রেসের দুরবস্থা নিয়ে ক্ষোভ জানিয়ে সভাপতি সোনিয়া গান্ধীকে চিঠি লেখেন ২৩ জন বিক্ষুব্ধ কংগ্রেস নেতা।