এবার কি নিউজিল্যান্ডের মাটিতে পরাজয়ের বৃত্ত ভাঙ্গতে পারবে মাশরাফিরা ?

0

এবার কি নিউজিল্যান্ডের মাটিতে পরাজয়ের বৃত্ত ভাঙ্গতে পারবে মাশরাফিরা ? সেই অধরা জয়ের আশায় কিউইদের মাটিতে ২০১৬’পর ফের ওয়ানডে খেলতে নামতে যাচ্ছে টাইগাররা। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে এ পর্যন্ত দশ ওয়ানডে খেলেছে বাংলাদেশ। যেখানে একটি ম্যাচেও জয়ের স্বাদ পায়নি মাশরাফিরা।

নিউজিল্যান্ডের মাঠগুলো বরাবরই হাই স্কোরিং। ব্যাটসম্যানদেরই থাকে দাপট। যেখানে ব্যাটিংয়েই দুর্বল টাইগাররা। কিউই পেসারদের সামনে টিকতে পারেনি বাংলাদেশ। গতি আর বাউন্সারে কাবু টাইগার ব্যাটসম্যানরা। ২৮৮ রান নিউজিল্যান্ডের মাঠে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ স্কোর। ৯৩ রানে অলআউটের ঘটনাও আছে বাংলাদেশের। দুই সেঞ্চুরিয়ান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এবং ইমরুল কায়েস।

নিউজিল্যান্ডের মাঠে দ্বিপাক্ষিক আগের তিনটি সিরিজে সুবিধা করতে পারেনি বাংলাদেশ। ২০০৭, ২০১০ এবং ২০১৬ সালে তিনটি করে ওয়ানডে খেলে টাইগাররা। এছাড়া ২০১৫ বিশ্বকাপে হ্যামিল্টনে একটি ম্যাচে কিউইদের কাছে হারতে হয় বাংলাদেশকে।

নেপিয়ারে আগের দুই ওয়ানডেতে ব্যর্থ টাইগার ব্যাটসম্যানরা। দু’শো রানও তুলতে পারেনি বাংলাদেশ। তবে ঐ দুই ওয়ানডে হয়েছে ২০০৭ এবং ২০১০ সালে। এরমধ্যে বদলে গেছে বাংলাদেশ। তাই আশায় থাকতে পারে টাইগার ভক্তরা।

নিউজিল্যান্ডের মাঠে বাংলাদেশের সর্বোচ উইকেট শিকারী সাকিব আল হাসান নেই এ সিরিজে। বাটিংয়েই দারুণ কার্যকর দেশ সেরা এই অলরাউন্ডের অভাবটা ভোগাবে বাংলাদেশকে।

দু’দলের দেখা হয়েছে ৩২ বার। ২১ ম্যাচে হার বাংলাদেশের। টাইগাররা জিতেছে ১০ ওয়ানডে। পরিত্যক্ত হয় অন্য ম্যাচটি।

ঘরের মাঠে আধিপত্ব বাংলাদেশের। দ্বিপাক্ষিক সবশেষ দুই সিরিজে তো পাত্তাই পায়নি নিউজিল্যান্ড। দেশের মাটিতে কিউইদের বিপক্ষে ১৪ ওয়ানডে খেলেছে বাংলাদেশ। ৮ জয়ের বিপরীতে টাইগারদের হার ৫ ওয়ানডেতে।

টাইগার সমর্থকদের আশাবাদি করছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সবশেষ দুই ওয়ানডে। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে একবার নিউজিল্যান্ডকে হারানোর পর ইংল্যান্ডে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও জয় বাংলাদেশের।

এবার বাংলাদেশের তিন ওয়ানডে নেপিয়ার, ক্রাইস্টচার্চ ও ডানেডিনে। তিন মাঠেই হয় রানের বন্যা। কিউই পেসের সামনে বড় পরিক্ষা টাইগার ব্যাটসম্যানদের।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন