এখনো অন্ধকারে পুলিশ

0

রাজধানীর বনানীতে জনশক্তি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানের মালিক সিদ্দিক হোসেনকে হত্যার কারণ নিয়ে– এখনো অন্ধকারে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে সিদ্দিকের প্রতিষ্ঠানে হামলার পর, ঘটনাস্থলের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ প্রকাশ করেছে পুলিশ। ছবিতে থাকা মুখোশধারী চার হামলাকারীই– খুনী বলে ধারণা করা হচ্ছে। এদিকে, বাড্ডায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র নাসিম হত্যার প্রধান আসামীকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে, বনানী ৪ নম্বর সড়কে ১১৩ নম্বর বাড়ির নীচতলায় সিদ্দিকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হানা দেয় দুর্বৃত্তরা। ঘটনার পর বানানী থানা পুলিশ জানায়, দুর্বৃত্তরা সেখানে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি করে পালিয়ে যায়। এতে সিদ্দিকসহ চারজন আহত হন। আহতদের গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়া হলে– সিদ্দিক চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

ঘটনার তদন্তের বিষয়ে বুধবার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করেছে। এটি যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। তবে এনিয়ে ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি হননি পুলিশ। ফুটেজে চারজন মুখোশধারীকে ওই প্রতিষ্ঠানে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি করতে দেখা গেছে। যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে– ফুটেজে তাদের ছবি স্পষ্ট দেখা গেছে। তাছাড়া তাদের সম্পর্কে তথ্যও পাওয়া গেছে।

বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মিজানুর রহমান, যুগ্ম কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়সহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা। বিকেলে সিদ্দিকের মরদেহের ময়না তদন্ত শেষে সন্ধ্যায় বায়রা কার্যালয়ে তার জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। পরে সেখানে সংবাদ সম্মেলনে, বায়রা নেতারা খুনীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানান।

অন্যদিকে, রাজধানীর বাড্ডায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র নাসিম হত্যা মামলায় আসিফ শিকদার নামে এক যুবককে কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ডিএমপি গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে, ডিসি মোস্তাক আহমেদ জানান, জুয়ার আসরে বাধা দেয়ায় নাসিম খুন হয়েছিলো কিনা তার তদন্ত করছে পুলিশ। এ ঘটনায় নাসিমের বাবা বাদি হয়ে বাড্ডা থানায় মামলা করেছেন।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন