স্পিডবোট দুর্ঘটনায় পরিবারের সবাইকে হারিয়ে শিশু মিম এখন নানা-নানির আশ্রয়ে

0

মাদারীপুরের শিবচরে স্পিডবোট দুর্ঘটনায় বাবা-মা-বোনসহ পরিবারের সবাইকে হারিয়ে শিশু মিম এখন খুলনায় নানা-নানির আশ্রয়ে। সকালে প্রশাসনের উপস্থিতিতে নিজ বাড়িতেই নিহত ৪ জনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। দাদির মৃত্যু সংবাদ পেয়ে লকডাউনের মাঝেই ঢাকা থেকে খুলনার তেরখাদার পাড়খালি গ্রামে যাচ্ছিল মিমের পুরো পরিবার। শিবচরে স্পিডবোটে করে পদ্মা পাড়ি দেয়ার সময় বাল্কহেডের সাথে ধাক্কা লেগে দুর্ঘটনায় নিহত হন বাবা মনির শিকদার, মা হেনা বিবি, বোন রুমি ও সুমি। ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছে মীম।

দাদিকে শেষবারের মতো দেখার জন্য বাবা-মায়ের সাথে বাড়ি ফিরছিল মিম। ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে বাবা-মা ও দুই বোনের মরদেহ নিয়ে তাকেই ফিরতে হয়েছে বাড়িতে। রাতে তেরখাদার পাড়খালি গ্রামে নিহতদের মরদেহ পৌঁছালে হৃদয় বিদারক দৃশ্য তৈরি হয়। মিম জানায় তার বেঁচে যাওয়ার কাহিনী।

মিমের বাবা নিহত মনির শিকদার ঢাকার মিরপুরে থাকতেন। স্থানীয় মসজিদ মার্কেটে কাপড়ের ব্যবসা করতেন। তার মা রোববার রাতে খুলনার তেরখাদায় মারা যান। সোমবার সকালে মায়ের জানাজা ও দাফনে অংশ নিতে পরিবারসহ ঢাকা থেকে রওনা দেন বলে জানায় স্বজনরা।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে নিহতের পরিবারকে খবর জানান ইউএনও।

মাদারীপুর জেলা প্রশাসন নিহত প্রত্যেকের দাফনের জন্য ২০ হাজার করে টাকা দিয়েছে বলে জানায় ওসি।

সব হারানো মীমের জীবন সংগ্রামে এলাকাবাসীকে পাশে থাকার আহ্বান জানান তারা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন