সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ৬ ছাত্রলীগ নেতাকর্মী

0

সিলেটে এমসি কলেজ হোস্টেলে গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনায় ছাত্রলীগের ৬ নেতাকর্মীসহ ৯ জনকে আসামী করে শাহপরাণ থানায় মামলা করেছে নির্যাতিতার স্বামী। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। ঘটনার প্রধান আসামী ছাত্রলীগ নেতা এম সাইফুরের কক্ষ থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ বিপুল দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে আলাদা আরেকটি অস্ত্র মামলাও করেছে পুলিশ। নির্যাতিতা গৃহবধু ওসমানী মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নগরীর টিলাগড় এলাকায় সিলেটের এমসি কলেজে স্বামীর সাথে বেড়াতে আসা এক গৃহবধূকে গণধর্ষণ করে ছাত্রলীগের অন্তত ৬ নেতাকর্মী। এসময় তার স্বামী প্রতিবাদ করলে তাকে মারধর করে ধর্ষণকারীরা। খবর পেয়ে পুলিশ ওই নববধূকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করে।

বর্বর এ ঘটনায় এমসি কলেজ ছাত্রলীগের নেতা ও কলেজটিতে ইংরেজিতে মাস্টার্সে অধ্যয়রত শাহ মাহবুবুর রহমান রণি, একই শ্রেণীতে অধ্যয়নরত ছাত্রলীগ নেতা মাহফুজুর রহমান মাছুম, ছাত্রলীগ নেতা এম সাইফুর রহমান, কলেজ ছাত্রলীগ নেতা অর্জুন এবং বহিরাগত ছাত্রলীগ নেতা রবিউল ও তারেককে আসামী করে শাহপরান থানায় মামলা করেছে নির্যাতিতার স্বামী।

করোনাকালে বন্ধ কলেজ হোস্টেলে কিভাবে ছাত্রলীগ নেতারা থাকার অনুমতি পেলেন এমন প্রশ্নের সদুত্তর দিতে পারেন নি কলেজ অধ্যক্ষ। দোষী ছাত্রদের ব্যাপারে একাডেমীক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

নির্যাতিতা গৃহবধূর শারিরীক অবস্থা আগের থেকে কিছুটা উন্নতির পথে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

এদিকে আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে এম সি কলেজের প্রধান ফটকে বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেছে কলেজ ছাত্রলীগ ও বিভিন্ন সামাজিক -সাংস্কৃতিক সংগঠন। এসময় তারা সিলেট -তামাবিল মহাসড়ক অবরোধ করলে কলেজ কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ তোলে নেন।
বিষয়টি তদন্তের জন্য কলেজ থেকে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে দেয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন