সিন্ডিকেটের কবলে পড়ে পানির দামে চামড়া বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছে সাধারণ মানুষ

0

সিন্ডিকেটের কবলে পড়ে এবার পানির দামে চামড়া বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছে সাধারণ মানুষ। মৌলভীবাজার চামড়া ব্যবসায়ী সমিতি জানায়, ট্যানারি মালিকদের কারণে সংকটে পড়েছেন তারা। পৌর মেয়র বলেন, তার নিজের তদারকিতে চামড়া কিনে ব্যবসায়ীরা লবন দিয়ে সংরক্ষণ করেছে। অন্যদিকে, খুলনা বিভাগের সবচেয়ে বড় এবং দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম যশোরের রাজারহাট চামড়ার বাজারের ঈদ পরবর্তি প্রথম হাট একেবারেই জমেনি। বড় ধরনের লোকসান এড়াতে কেউ কেউ চামড়া ভারতে পাচার করে দিতে পারেন বলে আশংকা করা হচ্ছে।

মৌলভীবাজারে কোরবানীর পশুর চামড়া পানির দামে বিক্রি করেছেন গৃহস্থরা। কম দামে কিনে ফড়িয়া, আড়ৎদার ও মৌসুমী ব্যবসায়ীরা লবন দিয়ে সংরক্ষণ করলেও, লাভ পাওয়া নিয়ে হতাশ হয়ে পড়েছেন তারা। গরুর চামড়া ৪০ থেকে ১০০ এবং ছাগলের চামড়া ৩০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হয়।গত দুই বছর ধরে ঈদে নজিরবিহীন দরপতনে চামড়া ব্যবসার সংগে জড়িতরা বিপুল পরিমাণ ক্ষতির শিকার হয়েছেন। মৌলভীবাজার চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি অভিযোগ করেন, ট্যানারি মালিকদের কারণে সংকটে পড়েছেন তারা।

এবার কোরবানির পশুর চামড়া তেমন নষ্ট হয়নি বলে দাবি করেন, এই জনপ্রতিনিধি।এদিকে, দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চামড়ার বাজার যশোরের রাজারহাট ঈদ পরবর্তি সময়ে একেবারেই জমেনি। ৭০ থেকে ৮০ হাজার চামড়া উঠার কথা থাকলেও আসে মাত্র দু’হাজার। তাও ন্যায্য মূল্য পায়নি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। তারা জানান, কেনা দামেও চামড়া বিক্রি করতে পারেননি।

‘আড়তদাররা জানান, নগদ টাকার অভাব, ট্যানারি মালিকরা সময়মত পাওনা টাকা না দেওয়া, লবনসহ শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধিসহ নানা কারণে ধস নেমেছে রাজারহাট চামড়া বাজারে।চামড়া ব্যবসায়ী সমিতি জানায়, বিদেশে রফতানির সরকারি ঘোষণায় ব্যবসায়ীদের মধ্যে উৎসাহ দেখা দিয়েছে। আগামী হাট জমে উঠবে বলে আশা করছেন তারা।

ভারতে চামড়া পাচার ঠেকাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি তৎপর রয়েছে বিজিবি।ট্যানারি মালিকদের সিন্ডিকেট বন্ধে এবং ক্ষুদ্র চামড়া ব্যবসায়ীদের ক্ষতি ঠেকাতে সরকার কার্যকর পদক্ষেপ নেবে বলে আশা করে, চামড়া ব্যবসায়িরা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন