সিনহা হত্যা মামলায় গ্রেফতারি পরওয়ানা জারি, আসামী ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ছুটিতে

0

কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মুহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া ফাঁড়ির আইসি ইন্সপেক্টর লিয়াকতসহ ৯ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরওয়ানা জারি হয়েছে।

সাত কর্মদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট থানাকে মামলা নেয়ার নির্দেশ দেয়ার মাত্র ১০ ঘন্টা পরই হত্যা মামলাটি করে টেকনাফ মডেল থানা। এরপর, এজাহারভুক্ত সব আসামীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরওয়ানা জারি করা হয়। তদন্ত কর্মকর্তা চাইলে এখন মামলার অগ্রগতির স্বার্থে যে কোনো সময় আসামীদের গ্রেফতার করতে পারবেন। পরওয়ানা জারি হয়েছে, টেকনাফ থানার সদ্য প্রত্যাহার হওয়া অফিসার ইনচার্জ ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলী, এসআই নন্দলাল রক্ষিত, এসআই লিটন মিয়া, এসআই টুটুল, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টবল কামাল হসেন, কনস্টবল আব্দুল্লাহ আল মামুন এবং কনস্টবল মোস্তফা। তাদের আটজনকে টেকনাফ থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে নেয়া হয়েছে। অসুস্থতা জনিত ছুটি নিয়েছেন ওসি প্রদীপ কুমার দাশ। এর আগে বুধবার সকালে কক্সবাজারের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ’র আদালতে ফৌজদারী দরখাস্ত করেন মামলার বাদী নিহত মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এদিকে, বাদীর জবানবন্দি শেষে সাত কর্মদিবসের মধ্যে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা করতে টেকনাফ মডেল থানাকে নির্দেশ দেয় আদালত। ৩১ জুলাই টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া এলাকায় পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মুহাম্মদ রাশেদ খান।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন