রাজধানীর গণপরিবহনে বাড়েনি মানুষের উপস্থিতি, ট্রেনে যাতায়াতে যাত্রীদের স্বস্তি

0

সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চালু হলেও রাজধানীর সড়কে বাড়েনি সাধারণ মানুষের উপস্থিতি। নিজের সুরক্ষায় স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের পাশাপাশি সমাগম এড়িয়ে চলছেন অনেকেই। এদিকে দেশের বিভিন্ন রুটে আজও ১৯ জোড়া আন্ত:নগর ট্রেন চলাচল করে। আর কমলাপুর রেলষ্টেশন থেকে যাতায়াত করছে ১৪ জোড়া ট্রেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে রেল যাতায়াতে বেশী সুরক্ষার কথা জানান যাত্রীরা।

সাধারণ ছুটির পঞ্চম দিনে রাজধানীর চিত্র এটি। করোনার মধ্যে বাইরে মানুষের উপস্থিতি তেমন ছিলো না । জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন না কেউই।

সাধারণ ছুটির পর করোনায় মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছেই। তাই নিজের সুরক্ষায় সচেতন থাকার বিকল্প নেই।

মাস্ক ছাড়া যারা চলাফেরা করছেন, তাদের অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে তেমন জানেন না।

রাজধানীর ব্যস্ততম সড়ক —ফার্মগেট এলাকা। মাঝে মাঝে গাড়ীর চাপ বাড়লেও বেশীর ভাগই ফাঁকা। বাসগুলোতে নেই বাড়তি যাত্রী।

এদিকে, দেশের বিভিন্ন রুটে ১৯ জোড়া রেল চলাচল করার কথা জানান কর্তৃপক্ষ। আর কমলাপুর রেল ষ্টেশন থেকে যাতায়াত করবে ১৪ জোড়া রেল।

কমলাপুর রেলষ্টেশন থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় বনলতা এক্সপ্রেস।

দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ঢাকায় আসা-যাওয়া যাত্রীরা করোনা নিয়ে জানান তাদের প্রতিক্রিয়া।

দিন যতই যাচ্ছে করোনা পরিস্থিতি ততই ভয়াবহতা ছড়িয়ে পড়ছে। এমনতাবস্থায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেন চলাচল নিশ্চিত করার কথা জানালেন কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন