আবরার হত্যাকান্ডে মৃত্যুদণ্ডের সাজার বিধান রেখে সব আসামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আবেদন

0

যেই ঘৃন্য উপায়ে আবরারকে হত্যা করা হয়, তা শুধু নৃশংস নয়, জঘন্যতম অপরাধ এবং সেই অপরাধের নেপথ্যে ছিল ক্ষমতার দাম্ভিকতা ও অহংকার। এমন পর্যবেক্ষণ তুলে ধরে মৃত্যুদণ্ডের সাজার বিধান রেখে সব আসামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আবেদন করছে রাষ্ট্রপক্ষ। তবে আবরারের মৃত্যুকে অনিচ্ছাকৃত ঘটনা দাবী করে সর্বোচ্চ সাজায় চার্জ গঠনের বিরুদ্ধে যুক্তি তুলে ধরে আসামীপক্ষ। কারাগারে থাকা ২২ আসামীর মধ্যে ১৩ আসামীর আইনজীবীদের বক্তব্য গ্রহণ করে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মুলতবি করা হয় বহুল আলোচিত এই মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানি।

৬ অক্টোবর ২০১৯। রাত ৮ টা ২০ মিনিটে শেরেবাংলা হলের ২০১১ নম্বর রুমে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয় বুয়েটের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে। সেখানেই কিল ঘুষি ও ক্রিকেট স্ট্যাম্পের উপুর্যপুরি আঘাতে মৃত্যু হয় আবরারের। পরে চাদরে মুড়িয়ে মেধাবী এই শিক্ষার্থীর লাশ নিচতলার সিড়ির সামনে ফেলে রাখে হত্যাকারিরা।

শিবির সন্দেহে আবরারের উপর ছাত্রলীগ হল শাখার নেতাকর্মীদের সেই নির্মমতার খবর ছড়িয়ে পড়লে ক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠে শিক্ষাঙ্গন।

চকবাজার থানায় আবরারের বাবার করা মামলায় ১৯ জনকে আসামী করা হলেও তদন্ত শেষে ২৫ জনকে আসামী করে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় ডিবি পুলিশ।

আলোচিত এই মামলার দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য পরিবর্বতন হয় আদালত। করোনাকালীন দীর্ঘ বিরতি শেষে বুধবার দ্রুত বিচার ট্রাইবুনাল-১ এ শুরু হয় অভিযোগ গঠনের শুনানি। এজলাসে থাকা ২২ আসামীর মধ্যে ১৩ জনের বক্তব্য শুনে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মুলতবি করা হয় অভিযোগ গঠনের শুনানি।

এসময় আদালতে আসামীদের করা অপরাধ সম্পর্কে নিজেদের মূল্যায়ন তুলে ধরে রাষ্ট্রপক্ষ।

তবে সর্বোচ্চ সাজার বিধান রেখে অভিযোগ গঠন সঠিক হবে না বলে আসামীপক্ষের দেয়া যুক্তির জবাবও দিয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ।

দেশে আর যেন এ ধরনের নির্মম ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় বিচারের মাধ্যমে সেই দৃষ্টান্ত স্থাপনের চেষ্টা করা হবে বলেও আশ্বাস দেয় রাষ্ট্রপক্ষ।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন