মেটেনি রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দ্বন্দ্ব

0

কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপের পরও মেটেনি রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দ্বন্দ্ব। দীর্ঘদিনের রেষারেষির কারণে সম্মেলনের প্রস্তুতি সভাগুলোতেও হাজির থাকেন না সভাপতি। এ নিয়ে বিব্রত দলের শীর্ষ নেতারাও। তবে সবকিছু ছাপিয়ে এবার হাইব্রিড নেতাদের কাউন্সিলর না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি।

দীর্ঘ পাঁচ বছর পর আগামী ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন। তাই নেতাকর্মীদের মধ্যে এখন বিপুল উদ্দীপনা। চলছে প্রস্তুতি। ঘন ঘন হচ্ছে প্রস্তুতি সভা। কিন্তু সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মুখ দেখাদেখি বন্ধ।

২০১৪ সালের ৬ ডিসেম্বর সম্মেলনের পর ওমর ফারুক চৌধুরীকে সভাপতি ও আসাদুজ্জামান আসাদকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়। নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা ছিল, এই কমিটির নেতৃত্বে প্রাণ ফিরে পাবে জেলা আওয়ামী লীগ। কিন্তু যত দিন গড়িয়েছে, এ দু’নেতা দূরত্ব ততই বেড়েছে। গত ৫ নভেম্বর ঢাকায় কেন্দ্রীয় নেতারা বসেও মেটাতে পারেননি দ্বন্দ্ব। পাঁচ বছর পর নতুন সম্মেলনের প্রস্তুতিকালে হতাশার কথাই বললেন দলের নীতিনির্ধারণী নেতারা।

সম্মেলনের দিন ঘনিয়ে আসায় সভাপতি ও সম্পাদকের দ্বন্দ্বের কথা নেতাকর্মী মুখে পেয়েছে নতুন মাত্রা। প্রস্তুতি সভাগুলোতেও ঘুরে ফিরে একই আলোচনা। কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় শীর্ষ নেতাদের সকল চেষ্টাই যেন হার মেনেছে এ দুই নেতার কাছে। চাপিয়ে দেয়া নয়, এবার ভোটেই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করতে চান কাউন্সিলরা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন