শুক্রবার, জুলাই ১

ইন্সপেক্টর লিয়াকত নিজের হাতেই গুলি চালিয়ে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহাকে হত্যা করেছে বলে আদালতকে অভিযোগ করেন বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ। এই ঘটনায় তার কোন সম্পৃক্ততা নেই বলতেই লিয়াকতকে কিছুটা বিমুর্ষ হতে দেখেন আইনজীবীরা। এরপর আবেগপ্রবণ হয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন ওসি প্রদীপ। কারণ দীর্ঘ বিচারিক কার্যক্রম শেষে ৩১ জানুয়ারী বহুল আলোচিত এই মামলার রায়ের দিন ধার্য্য করেছেন কক্সবাজার ও জেলা দায়রা জজ আদালত।

চারদিনের যুক্তিতর্ক শেষে আদালত থেকে বের হয়ে আসেন, বরখাস্ত ওসি প্রদীপের প্রধান আইনজীবী রানা দাশ গুপ্ত। পরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, বিচারক প্রভাব মুক্ত, আবেগহীন এবং তাঁর কাছে থাকা তথ্যের উপর ভিত্তি করে আলোচিত এই মামলার রায় দেবেন এমনটাই আশা আসামী পক্ষের।

এর আগে সকালে সিনহা হত্যা মামলার অন্যতম আসামী বরখাস্ত ওসি প্রদীপ নিজের আবেদন নিয়ে আদালতের কাছে দশ মিনিটের সময় চান। বিচারক সময় প্রার্থনা মঞ্জুর করলে আদালতকে প্রদীপ বলেন, সিনহাকে গুলি করে হত্যা করেছে বরখাস্ত ইন্সপেক্টর লিয়াকত। হত্যার কথা সরাসরি অস্বীকার করে তার প্রতি সহায় হতে অনুরোধ জানায় প্রদীপ। এসময় প্রদীপের কথা শুনে লিয়াকত বিমুর্ষ হয়ে যান বলে জানান, বাদী পক্ষের এই আইনজীবী।

বাদী পক্ষের প্রধান আইনজীবী বলেন, ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেননি প্রদীপ। ৩৪২ ধারার লিখিত বক্তব্যে তার এই বক্তব্য ছিলনা। কিন্তু এখন সে তার এই আবেদনে নিজের অপরাধ ঢাকার অপচেষ্টা করছেন। প্রদীপের এই বক্তব্য আদালতের কাছে গ্রহনযোগ্য হয়নি বলে জানান তিনি।

রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী বলেন, আগামী ৩১ জানুয়ারী সিনহা হত্যা মামলার রায়ের দিন ধার্য্য করা করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, হত্যার সাথে ১৫ আসামী যে জড়িত তার যতেষ্ট প্রমাণ তারা আদালতকে উপস্থাপন করতে সমর্থ হয়েছেন।

২০২০ সালের ৩১ জুলাই টেকনাফের শামলাপুর চেকপোষ্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

Share.

Leave A Reply