মাত্র ৩ দিনের ব্যবধানে পাইকারী আড়তে পেঁয়াজের দাম কমেছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা

0

মাত্র ৩ দিনের ব্যবধানে রাজধানীর শ্যামবাজারের পাইকারী আড়তে পেঁয়াজের দাম কমেছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা। মঙ্গলবার প্রতিকেজি দেশি এবং মিয়ানমারের পেঁয়াজ ১২০ থেকে ১৩০টাকা এবং চায়না ও মিশরীয় পেয়াজ ১০০ থেকে ১১০ টাকায় বিক্রির কথা জানান আড়তদাররা। বাজারে নতুন পেঁয়াজ আসতে শুরুর পাশাপাশি বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করায় আগামী ১ সপ্তার ব্যবধানে প্রতিকেজি ৫০ থেকে ৬০ টাকায় নেমে আসবে বলে আশা আড়তদারদের। এদিকে, ধীরে হলেও পাইকারী বাজারের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে খুচরা বাজারে। খুচরা বাজারে প্রতিকেজি দেশি পেয়াজ ২০০ থেকে ২২০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে।

দেশের সবচে বড় পাইকারী পেঁয়াজের বাজার রাজধানীর শ্যামবাজারের আড়তগুলো ভুগছে কিছুটা ক্রেতা সংকটে। গত ৩ দিনে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম কমেছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা। এরমধ্যে সোমবারের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় কমেছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা। আড়তদারদের আশা, সপ্তাহখানেকের মধ্যে পেঁয়াজের দাম বর্তমান দামের অর্ধেকে নেমে আসবে। তবে আড়তের দামের প্রভাব তেমনটা দেখা যায়নি খুচরা বাজারে। দেশি পেঁয়াজ এখনো ২১০ থেকে ২২০ দরে বিক্রি হচ্ছে। পাইকারি এবং খুচরা বাজারের দামের বড় ধরনের হেরফেরের জন্য একে অপরকে দায়ি করেছেন খুচরা এবং পাইকারি বিক্রেতারা।

অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধির প্রভাবে ভোক্তারাও অনেকেই কমিয়ে দিয়েছেন রান্নায় পেঁয়াজের ব্যবহার। এছাড়া, বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করায় সামগ্রিকভাবে এর প্রভাব পড়েছে বাজারে। ভারত গত সেপ্টেম্বরে পেঁয়াজ রপ্তানী বন্ধ করে দেয়ায় বিপাকে পড়ে বাংলাদেশ। তাই পেঁয়াজসহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের একটি মাত্র দেশ আমদানি করার নীতি থেকে সরে আসতে পরামর্শ দেন ব্যবসায়ীরা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন