মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্রবন্দর অপারেশনে যাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা ২০২৬ সাল

0

মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্রবন্দর ২০২৬ সালে অপারেশনে যাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছে মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ প্রকল্প কর্তৃপক্ষ। তবে এর আগেই ২০২২ সালের আগস্টের মধ্যে একটি কয়লা টার্মিনালও নির্মাণ করারও পরিকল্পনা রয়েছে।

মোট ১৭ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ইতোমধ্যেই শুরু হওয়া সরকারে এই প্রকল্পের নির্মাণ কাজে ১০ হাজার কোটি টাকার বেশি অর্থের জোগান দেবে জাপানি উন্নয়ন সংস্থা জাইকা, নিজস্ব তহবিল থেকে চার হাজার কোটি টাকা জোগান দেবে সরকার এবং তিন হাজার কোটি টাকা দেবে বন্দর কর্তৃপক্ষ। সংশ্লিষ্টরা জানান, গত কয়েক বছর ধরে সরকার গভীর সমুদ্রে একটি বন্দর নির্মাণের পরিকল্পনা করে আসছিল। এই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে মহেশখালীর সোনাদিয়ায় একটি গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণের লক্ষ্যে প্রকল্পও গ্রহণ করা হয়। কিন্তু ২০১৪ সলের অগাস্টে সোনাদিয়ায় গভীর সমুদ্র বন্দরের প্রস্তাবিত এলাকার মাত্র ২৫ কিলোমিটার দূরে কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ি এলাকায় ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য একটি জেটি নির্মাণ করতে গিয়েই সমীক্ষায় ধরা পড়ে যে, এখানেই গভীর সমুদ্র বন্দর করার উপেযোগী। এ থেকেই মাথায় আসে গ্রহণ করা হয় প্রকল্প পরিকল্পনা। চলতি বছরের ১০ মার্চ মাতারবাড়িতে ১৭ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা ব্যয়ে দেশের প্রথম গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ প্রকল্প একনেকের অনুমোদন পায়।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন