মহামারী করোনা সংক্রমণের কারণে চলচ্চিত্রে দেখা দিয়েছে অনিশ্চিয়তা

0

মহামারী করোনা সংক্রমণের কারণে চলচ্চিত্রে দেখা দিয়েছে অনিশ্চিয়তা। বন্ধ হয়ে গেছে সিনেমা হলগুলো। এখন সিনেমা পাড়ায় সুনশান নীরবতা। নিষেধাজ্ঞা থাকায় বড় ধরণের লোকসানে রয়েছেন নির্মাতারাও। আর এ খাত থেকে সরকার হারাচ্ছে বড় ধরণের রাজস্ব। এ পরিস্থিতিতে প্রায় আটকে গেছে ১৫টি চলচ্চিত্র।

সিনেমা হল বন্ধ থাকায় এই খাতে ক্ষতির পরিমাণ তিনশ থেকে সাড়ে তিনশ কোটি টাকা বলে জানান বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু৷

একটা সময় অনিয়মিত দর্শকেরাও ঈদের ছুটিতে দল বেঁধে ছুটে যেতেন তাদের পচ্ছন্দের ছবি দেখতে। কিন্তু এবার মারণব্যাধি করোনা সবই কেড়ে নিয়েছে।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির হিসেবমতে, এবারের ঈদে ঢাকাসহ সারা দেশে ১১৫টি প্রেক্ষাগৃহ খুলেছিল। এসব প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাওয়া ছবির তালিকায় ছিল পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা সিনেমা সৌভাগ্য ছাড়া বাকি সব কটিই পুরোনো। (সিনেমাহলের জিএফক্স

ঈদে অনেকগুলো বড় বাজেটের নতুন ছবি মুক্তির কথা ছিল। কিন্তু করোনার কারণে শেষ মুহূর্তে পরিস্থিতি পাল্টে যায় বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্স এক সময় অনেক ঝমজমাট ছিল। প্রতিদিন যেখানে টিকিট বিক্রির দির্ঘ লাইন দেখা যেত কিন্তু করোনার কারণে এপ্রিল থেকে হলটি বন্ধ থাকায় নেই চিরচেনা সেই ভিড়।

বলাকা সিনেমাহল। একসময় এখানে সপ্তাহব্যাপী ভিড় লেগেই থাকতো কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি খুবিই ভয়াভহ। ফার্মগেটের আনন্দ সিনেমা হলে ছোট বড় সব ধরনের মানুষের ব্যাপক চাহিদা ছিল। কিন্তু এখন সেই হলটি দর্শক শূন্য।  পাশাপাশি ঢাকার বাহিরের চিত্রও একই রকম। তবে,খবু তাড়াতাড়ি স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসবে এমন প্রত্যাশা সংশ্লিষ্টদের।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন