ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি

0

ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে হাইকোর্ট। মঙ্গলবার এ বিষয়ে মামলার শুনানিতে উচ্চ আদালত জানায়, ভেজাল ওষুধ বিক্রেতাদের ন্যূনতম সাজা হওয়া উচিত যাবজ্জীবন এবং প্রথমবারের পর দ্বিতীয়বার কারো বিরুদ্ধে ভেজাল ওষুধ বিক্রির অভিযোগ প্রমাণ হলে তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করার নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত।পরে বিশেষ সুবিধা দিয়ে চিকিৎসকদের প্রভাবিত না করার আদেশ দিয়ে ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করেছে হাইকোর্ট।

বেশি লাভের আশায় দেশজুড়ে চলছে আসল মোড়কে নকল ওষুধ বিক্রি। গ্রাম, মহল্লা থেকে শুরু করে রাজধানীর অভিজাত ফার্মেসী, সবখানেই দেদারসে বিক্রি হচ্ছে মেয়াদ উত্তীর্ণ ভেজাল ওষুধ। সাজা কম হওয়ায় মোবাইল কোর্টের তৎপরতা সত্ত্বেও কমছে না ভেজাল ওষুধ বিক্রির প্রবনতা। এমন বাস্তবতায় ভেজাল ওষুধ বিক্রি বন্ধে রুল জারি করে হাইকোর্ট। মঙ্গলবার সেই রুলের শুনানিতে উচ্চ আদালত জানায়, ভেজাল ওষুধ ব্যবসায়ীদের টনক নড়াতে প্রয়োজন সাজা বৃদ্ধি।

প্রথমবার এই মামলা হাজির হয়ে সাজা বৃদ্ধির সঙ্গে ঐক্যমত প্রকাশ করে বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতি। শুনানিতে ওষুধের স্যাম্পল, অর্থসহ বিভিন্ন সুবিধা দিয়ে চিকিৎসকদের প্রভাবিত করার জন্য কোম্পানীগুলোকে দোষারপ করে হাইকোর্ট। ভেজাল ওষুধ বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা ১২ ডিসেম্বরের মধ্যে জানাতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশও দেয় হাইকোর্ট।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন