শুক্রবার, জুলাই ১

 

বোরোর ভরা মৌসুমে অস্থির রাজধানীর চালের বাজার। ভোজ্যতেলের পর গত এক সপ্তাহে বাজারে কেজিতে চার থেকে পাঁচ টাকা বেড়েছে সব ধরনের চালের দাম। আটা, ময়দা তেলসহ বেশিরভাগ নিত্যপণ্যের দামও উর্ধ্বমুখি। ব্রয়লার মুরগীর দাম কিছুটা কমলেও বাজারে ডিমের হালি এখন ৪০ টাকা। খাদ্যপণ্যের অসহনীয় চড়া দামে বিপাকে সাধারণ মানুষ।

রাজধানীর বাজারে সরু চাল বা মিনিকেট ৬৫ থেকে ৭০ টাকা, নাজিরশাইল ৭৫ টাকা, ব্রি-২৮, পাইজাম ও মোটা চাল ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

বোরো মৌসুম শুরু হলেও দাম বৃদ্ধি নিয়ে ক্ষুব্ধ সাধারণ ক্রেতা।তবে চাল ব্যবসায়ীদের দাবি, বন্যার কারণে সব ধরনের চালের দাম বেড়েছে।

নিত্যপণ্যের বাড়তি দামের কারণে সীমিত আয়ের মানুষের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। আয় না বাড়ায় সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে নিম্ন-মধ্যবিত্তরা ।

বন্যার কারণে ব্রয়লার মুরগীর বাজারে ছেড়ে দেওয়ায় দাম কমেছে কিছুটা। কিন্তু বেড়েছে ডিমের দাম।

এখনো রাজধানীর বাজারে ৭০০ টাকা দামেই বিক্রি হচ্ছে গরুর মাংস। বিক্রেতারা বলছেন, ভারত থেকে গুরুর আমদানি কমে যাওয়ায় দাম বেড়েছে ।

এদিকে প্রায় সব দোকানেই সরকার নির্ধারিত দামে ভোজ্যতেল বিক্রি হতে দেখা গেছে। ৫ লিটার সয়াবিন তেল ৯৮৫ টাকা এবং লিটার ১৯৮ টাকা বিক্রি করা হচ্ছে। তবে খুচরা পর্যায়ে পেঁয়াজের কেজি ৪০ টাকা । তবে রসুনের দাম বেড়ে ১৪০ টাকা কেজি থেকে ১৬০ টাকা হয়েছে ।

বাজারে সবজির দাম সর্বনিম্ন ৫০ টাকা। টমেটো ৬০ টাকা, বেগুন ৬০ টাকা, ঢেঁড়স, পটল ও ঝিঙা ৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

Share.

Leave A Reply