বিচার বিভাগের কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা বৃদ্ধিতে ভারতের সহায়তার আশ্বাস

0

করোনাকালীন সময়ে মানুষের ন্যায়বিচার নিশ্চিতে বাংলাদেশের বিচার বিভাগের ভূমিকা প্রশংসনীয় এবং অনুসরণ করা মতো। এমন মূল্যায়ন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামীর। এসময় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানান, বাংলাদেশ ও ভারতের বিচার ব্যবস্থা একই ধরনের তাই বিচার বিভাগের কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে ভারত। সকালে আইনমন্ত্রীর গুলশানের বাসভবনে, দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের জবাবে তারা এসব জানান।

বৈশ্বিক মহামারি করোনার সময়ে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে মানুষের ন্যায় বিচার নিশ্চিতে কাজ করেছে বিচার বিভাগ। সুপ্রিমকোর্টের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, জুলাইর প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত দেশের বিচারিক আদালতসমূহে মোট ৪০ কার্যদিবসে ১ লাখ ৭ হাজার ৩৭টি জামিন আবেদনের শুনানি হয়েছে, যদিও বর্তমান সংখ্যা এর চেয়ে অনেক বেশী।

ঢাকায় হাইকমিশনার হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর আইনমন্ত্রীর সঙ্গে প্রথম বৈঠকের উদ্দেশ্যে বুধবার তার গুলশানের বাসভবনে আসেন ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী। প্রায় ৪০ মিনিটের দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন তারা।

এসময় আইনমন্ত্রী জানান, প্রথম বৈঠকের মূল প্রতিপাদ্য ছিল ‘দুই দেশের বিচার ব্যবস্থার উন্নয়নে সমন্বিত পদক্ষেপ’ গ্রহণের বিষয়টি। এবং একই ধরনের বিচারিক কাঠামো থাকায় বিচার বিভাগের কর্মকর্তাদের মান উন্নয়নে সহায়তা করবে ভারত।

এসময় করোনার সময়ে বাংলাদেশের বিচার বিভাগের উদ্যোগ প্রশংসনীয় এবং তা অনুসরণ যোগ্য বলেও মন্তব্য করেন ভারতীয় হাইকমিশনার।

বৈঠক শেষে দেয়া এই প্রতিক্রিয়া তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ ভারতের বন্ধুত্ব প্রতি মূহুর্তে আরো সুদৃঢ় হচ্ছে

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন