বরিশালে বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে অতিরিক্ত টাকা আদায়

0

বরিশালে বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি থেকে শুরু করে সেশন ও উন্নয়ন ফি’র নামে অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হচ্ছে। আর স্কুলের নির্ধারিত ফি না দেয়া হলে প্রমোশনসহ নতুন বছরের বই আটকে রাখার মতও ঘটনা ঘটছে। যা চলছে বছরের পর বছর ধরে। আর এ কারণে বছরের শুরুতেই ছেলেমেয়েকে ভর্তি করাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে মধ্য ও নিম্নবিত্ত পরিবারগুলোকে।

বরিশলে নগরীর প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত উদয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ বছর ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত ভর্তি, সেশন, উন্নয়ন ও খেলাধুলাসহ বিভিন্ন ফি বাবদ ৫ হাজার ৩শ’টাকা করে নেয়া হচ্ছে। এরপর প্রতিমাসে বেতন বাবদ ৫শ’টাকা এবং পরীক্ষার ফি বাবদ দিতে হবে ৫শ’টাকা করে। এভাবে নগরীর প্রতিটি বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ভর্তি ও সেশন ফি আদায় করা হচ্ছে। যার প্রভাব পড়েছে উপজেলা ও গ্রামের বিদ্যালয়গুলোতেও।

বিদ্যালয়গুলোতে সরকার থেকে ভর্তুকি দেয়ার দাবি সাবেক ছাত্রনেতার। আর শিক্ষকদের দাবি ভর্তিতে স্কুলের অবকাঠামো উন্নয়ন ও শিক্ষার্থীদের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধিতে যে অর্থ নেয়া হয় তা যত সামান্য।

প্রমোশন আটকে শিক্ষার্থীদের ভর্তিতে টাকা আদায়ে চাপ প্রয়োগের বিষয়টি স্বীকার করে শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান বললেন, ভর্তি ও সেশন ফি নেয়ার ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা থাকা প্রয়োজন।

এদিকে ভর্তি শেষ হতে না হতেই শুরু হয়েছে শিক্ষকদের প্রাইভেট বাণিজ্য। বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষকরা প্রাইভেট পড়তে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ফরম পূরণ করাচ্ছেন।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন