‘বঙ্গবন্ধু ১’ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পর দেশের মানুষের মাঝে মহাকাশ নিয়ে উৎসাহ বেড়েছে

0

মহাকাশ সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মাঝে উৎসাহ বাড়াতে বিশ্বের অনেক দেশেই কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গবেষণা সংস্থা নাসা। ‘বঙ্গবন্ধু ১’ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পর দেশের মানুষের মাঝে মহাকাশ নিয়ে উৎসাহ বেড়েছে। এসএটিভিকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে এমন তথ্য জানান নাসার স্পেস ক্যাম্প অ্যাম্বাসেডর বাংলাদেশের সন্তান আফরোজ আল মামুন। তিনি বলেন, শিশু-কিশোরদের মহাকাশ নিয়ে আরো উৎসাহী করতে এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে নাসা।

১৯৫৮ সাল থেকে ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন – নাসা যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণায় কাজ করছে। পৃথিবীর বাইরে প্রাণী কিংবা বাসযোগ্য গ্রহের ব্যাপারে এখন অবশ্য অনেক দেশই উৎসাহী হয়ে মহাকাশ গবেষণায় প্রচুর অর্থ ব্যয় করছে। আর যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতিসহ নানা কারণে পৃথিবীর কক্ষপথে বাংলাদেশসহ ৫৭টি দেশ স্যাটেলাইট পাঠিয়েছে।

মহাকাশ গবেষণায় সাহায্য করাসহ এ সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে উৎসাহিত করতে ইউরোপ, আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য ছাড়াও এশিয়ার অনেক দেশে কাজ করছে নাসা। বাংলাদেশেও শিক্ষার্থীদের মাঝে মহাকাশ সম্পর্কে ধারণা দিতে কাজ শুরু করেছে সংস্থাটি। মহাকাশ জাদুঘর অ্যালাবামা’র ইউএস স্পেস এন্ড রকেট সেন্টারের স্পেস ক্যাম্প অ্যাম্বাসেডর বলছেন, বাংলাদেশে শিশু ও তরুণদের নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে। তথ্য-যোগাযোগ প্রযুক্তির উন্নতি ছাড়াও বাংলাদেশ চাইলে গবেষণা কেন্দ্র স্থাপন করতে পারে। আর তাতে সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত নাসা বলেও জানান আফরোজ আল মামুন।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন