পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে হ্যাটট্রিক জয় মমতার তৃণমূল কংগ্রেসের

0

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে জয়ের হ্যাটট্রিক করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২৯৪টির মধ্যে ২০৯ আসনে জয়লাভ করে ভূমিধ্বস বিজয় পেয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি পেয়েছে ৮২টি আসন। নির্বাচনে আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে ওঠা নন্দীগ্রামেও জয় পেয়েছেন মমতা। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া শুভেন্দুকে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে ১২শ’ ভোটে হারান মমতা।

করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের মাঝেই পশ্চিমবঙ্গে সম্পন্ন হলো বিধানসভার ভোটগ্রহণ৷। পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও তামিলনাড়ু, আসাম, কেরালা ও পন্ডিচেরিতে রোববার ভোট গণনা ও ফলাফল দেয়া হলেও সবার বিশেষ নজর ছিল পশ্চিমবঙ্গের দিকে। মূল লড়াই ছিল কেন্দ্রের শাসক বিজেপি ও রাজ্যে টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে। সকাল থেকে শুরু হয় ভোট গণনা ও ফলাফল প্রকাশ। রোববার সকালে ভোট গণনার পর থেকেই নিজ আসনে মমতার হেরে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হলেও শেষ পর্যন্ত বিজেপির শুভেন্দু অধিকারীকে পিছনে ফেলে এগিয়ে গেলেন মমতা।যিনি একসময় তৃণমূলেই ছিলেন।

আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগেই প্রধান দলগুলোর শিবিরে দুপুরের মধ্যে বার্তা পৌঁছে যায় জয়-পরাজয়ের। কলকাতার রাস্তায় আগাম বিজয় উদযাপনে নেমে যান তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকরা। তবে ভোটবাক্সে যে ফলাফল ধরা পড়েছে, তা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন তৃণমূল দলের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ১০ বছর ধরে রাজ্যের ক্ষমতা ধরে রেখেছেন।

এদিকে, কলকাতায় তৃণমূলের মিডিয়া সেন্টার- সমর্থকদের ভীড়ে সরগরম থাকলেও বিজেপির নির্বাচনী অফিস দুপুরের পরই খাঁ খাঁ। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচনে যে মাত্রার লড়াই দেখা গেছে, তা এর আগে কখনো দেখা যায়নি। ২৭শে মার্চ থেকে ২৯শে এপ্রিল পর্যন্ত আট দফায় ২৯৪টি আসনে ভোটগ্রহণ হয় পশ্চিমবঙ্গে। গোটা রাজ্যজুড়ে ৭৮ হাজার ৭৯৯টি কেন্দ্রে চলে ভোটগ্রহণের কাজ। এবারের নির্বাচনের লড়াইয়ের ময়দানে ছিল ১৮টি দল এবং দুই হাজার ১৩২ জন প্রার্থী। তবে, এমন সময় এই নির্বাচন হলো যখন ভারতে প্রতিদিন প্রায় চার লাখের কাছাকাছি করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন