পদ্মা উত্তাল থাকায় লঞ্চের চেয়ে ফেরিতে যাত্রীদের ভিড় বেশি

0

ঈদের ছুটি শেষে সকাল থেকে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে কর্মস্থলমুখী যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড়। পদ্মা উত্তাল থাকায় লঞ্চের চেয়ে ফেরিতে সাধারণ যাত্রীদের ভিড় বেশি দেখা গেছে। রাজধানী ঢাকাসহ কর্মস্থলে ফিরছে ঈদের ছুটিতে আসা ঘরমুখো মানুষ। ফেরি, লঞ্চ ও স্পিডবোটে করে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছেন যাত্রীরা।

সকালের দিকে প্রবল বাতাস বইতে থাকলে উত্তাল হয়ে উঠে পদ্মানদী। এ কারণে অধিকাংশ যাত্রীরাই ফেরিতে পার হচ্ছে। বিআইডব্লিউটিসি’র কাঁঠালবাড়ী ফেরিঘাট সূত্রে জানা যায়, শিমুলিয়া ঘাটের চার নম্বর ফেরিঘাট পদ্মায় বিলীন হয়ে গেছে। এ ঘাটটি ভিআইপি ফেরিঘাট নামেও পরিচিত। বুধবার দিনগত রাত ৩টার দিকে ভাঙন শুরু হয়। বর্তমানে পদ্মার তীব্র স্রোতে ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। এদিকে, ভাঙন শুরু হলে তাৎক্ষণিক পন্টুন সরিয়ে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ভাঙতে ভাঙতে নদী পার্কিংয়ের স্থানেও এসে পড়েছে। এদিকে, সকাল ৯টা পর্যন্ত ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। সকাল ৯টা টার পর থেকে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে সীমিত আকারে ফেরি চলাচল করছে। ফলে উভয় ঘাটেই কয়েক শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে।

সকাল থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বেড়েছে। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার ঢাকামুখী পরিবহন বাড়তে থাকালেও ১৬টি ফেরি চলাচল করায় ঘাট এলাকায় কোন যানজট দেখা যায়নি। সকাল থেকে পরিবহন আসা মাত্রই উভয় ঘাট দিয়ে ফেরিতে উঠতে পারছে। তবে দুপুরের পর থেকে দৌলতদিয়া ঘাটে ব্যাক্তিগত যানবাহন, যাত্রীবাহী বাস, যাত্রীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করবে বলেও জানান বিআইডব্লিউটিসি’র এক কর্মকর্তা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন