পটুয়াখালীর এক যুবক মুক্তা চাষ করে সফলতা পেয়েছেন

0

পটুয়াখালীর ধুলাসার ইউনিয়নের চাপলি গ্রামে মুক্তা চাষ করে সফলতা পেয়েছেন স্থানীয় এক যুবক। একই পুকুরে মাছের সাথে বানিজ্যিকভাবে মুক্তা চাষ করে বেকার সুজন এখন এলাকার সফল যুবক। প্রাকৃতিক মুক্তার পাশাপাশি, চাষের মুক্তাও এখন সমান জনপ্রিয় বলে জানান তিনি। পটুয়াখালী প্রতিনিধির তথ্য ও ছবিতে ডেস্ক রিপোর্ট।

রংপুরের সফল ঝিনুক চাষি লিটনের সহযোগিতা নিয়ে গত বছর ৩০ শতাংশ পুকুরের মিঠা পানিতে দু’হাজার ঝিনুক দিয়ে মুক্তা চাষ শুরু করেন বেকার যুবক সুজন হাওলাদার। প্রথমবারে সফলতা পেয়ে এ বছর বানিজ্যিকভাবে মুক্তার চাষ শুরু করেন তিনি।

সুজনের খামারে ইমেজ পদ্ধতি, টিস্যু প্রতিস্থাপন ও নিউক্লিয়ার্স বা গোলাকার মুক্তার মুক্তার চাষ করেন তিনি। এক একটি মুক্তা ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি করেন সুজন। একটি ঝিনুক থেকে একবারই জন্ম নেয় মুক্তা। পরে সেই ঝিনুক দিয়ে তৈরি হয় মাছের খাবার। তার সফলতা দেখতে আসেন নতুন উদ্যোক্তারা।

বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের জন্য এ খাত খুবই সম্ভাবনাময় বলে মনে করেন, এ সফল উদ্যোক্তা। মুক্তা চাষে প্রশিক্ষনসহ সব ধরনের সহযোগিতা করছে মৎস্য সম্পদ গবেষনা ইনিষ্টিটিউট। মাছের পাশাপাশি একই পুকুরে মুক্তার চাষ দিন দিন জনপ্রিয় হচ্ছে বেকার যুবকদের মাঝে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন