নিত্য পণ্যের দাম বাড়তে শুরু করেছে দেশের সবচেয়ে বড় পাইকারী বাজার খাতুনগঞ্জে

0

চালের পর এবার ডাল, ছোলা, ভোজ্যতেল, চিনিসহ নিত্য পণ্যের দাম বাড়তে শুরু করেছে দেশের সবচেয়ে বড় পাইকারী বাজার চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জে। সংশ্লিষ্টরা জানান, রমজানকে টার্গেট করে এখন থেকেই সবকটি পণ্যের দাম বাড়াতে শুরু করেছে অসাধু ব্যবসায়ী ও আমদানীকারক সিণ্ডিকেট। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে অনেক পণ্যের দাম বেঁধে দিতে শুরু করেছে সরকার। কিন্তু ব্যবসায়ীদের দাবী-দাম বেঁধে দেয়ার এই নীতি আরো অস্থির করে তুলবে বাজার। আর বাণিজ্যমন্ত্রী বলছেন, যে কোন উপায়ে রমজানের আগেই বাজার নিয়ন্ত্রণে আনবে সরকার।

গেল একমাস ধরে সবচেয়ে বেশি অস্থিরতা চলছে ভোজ্য তেলের বাজারে। ক’দিন আগে খুচরা পর্যায়ে একশো থেকে একশো ১০ টাকায় বিক্রি হওয়া প্রতিকেজি প্যাকেটজাত সয়াবিন তেলের দাম বেড়ে দেড়শো তে ঠেকে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে গত সপ্তায় সর্বচ্চো ১৩৫ টাকা দাম বেধে দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।*মিলগেট, পাইকারি, ও খুচরা পর্যায়ের তিন ক্যাটাগরিতে এই দাম নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু রোববার দেশের সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের কোথাও সরকারি নির্ধারিত দামের নিচে আবার কোথাও বেশি দামে তেল বিক্রি হতে দেখা গেছে। ব্যবসায়ীরা জানান, মিলার আর আমদানীকরকদের কারসাজিতে বাজার দরের এই হের-ফের।

এদিকে রমজানে সবচেয়ে বেশি চাহিদা থাকে ছোলা আর চিনির বাজারে। গেল এক সপ্তাহ ধরে এখানেও চলছে অস্থিরতা। বাজারে শুধু অস্ট্রেলিয়ান ছোলার মজুদ আছে। তাও প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। গেল বছর মিয়ানমার আর ভারতের ছোলার মজুদ ছিলো পর্যাপ্ত। কিন্তু এবার সেনা অভ্যুত্থানের অজুহাতে মিয়ানমার থেকে ছোলা আসেনি আর কন্টেইনার সংকটের ভারতসহ অন্যান্য দেশ থেকেও ছোলা আনতে পারছেন না ব্যবসায়ীরা।

তবে বাণিজ্য মন্ত্রীর দাবি, রমজানকে কেন্দ্র করে বাজারে যাতে কারসাজি হতে না পারে সে ব্যাপারে তৎপর আছে সরকার।

আর ব্যবসায়ী নেতারা বলছেন, দাম বেধে দেয়া কিংবা বাজার মনিটরিংয়ের নামে ব্যবসায়ীদের হয়রানী করে বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হবে না। ব্যবসায়ীদের হাতে বাজার ছেড়ে দিয়ে শুধু প্রশাসনিক তৎপরতায় বাজার নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। বাজারে শৃঙ্খলা ফেরাতে হলে টিসিবির সক্ষমতা বাড়ানোর বিকল্প নেই বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন