দেশের ৭ জেলায় করোনা উপসর্গে নিয়ে ১৩ জনের মৃত্যু

0

কুমিল্লায় ৬ জনসহ সিরাজগঞ্জ, ফেনী, গাইবান্ধাসহ ৭ জেলায় করোনা উপসর্গে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কুমিল্লায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে ৬ জন। এদের মধ্যে ৩ জন নারী। সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারি সার্জন ডা. মুক্তা রানি জানান, জ্বর, সর্দি, শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালের করোনা ইউনিটের আইসিইউতে ৩ জন ও আইসোলেশনে ৩ জন চিকিৎসাধীন ছিলেন।

সিরাজগঞ্জে ২৪ ঘন্টায় করোনা উপসর্গ নিয়ে জেলার প্রধান ডাকঘরের কর্মচারীসহ ২ জন মারা গেছেন। গত ক’দিন ধরে ডাক কর্মচারী হামিদুর রহমান করোনায় বাড়িতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এদিকে, শহরের রায়পুর মহল্লার রাজিয়া বেগম রোববার সকালে ঢাকায় ছেলের বাড়িতে মারা যান। স্বাস্থ্যবিধি মেনে রাতে সিরাজগঞ্জ শহরের রায়পুর কবরস্থানে পুলিশের সহায়তায় তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

ফেনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে আবুল কালাম আজাদ নামে এক কৃষি কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে। রোববার বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ফেনী জেনারেল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

গাইবান্ধা সদরে করোনা উপসর্গ নিয়ে গোলাম মোস্তফা লালন নামে এক পোশাক কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। রাতে শ্বাসকষ্ট ও ডায়রিয়া নিয়ে সদর হাসপাতালে যাওয়ার পথে রাস্তায় তিনি মারা যান।

চুয়াডাঙ্গায় করোনা উপসর্গ নিয়ে বদর উদ্দিন নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। দুপুরে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুর পর তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এবং করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন হয়েছে।

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে করোনা উপসর্গ নিয়ে মুস্তাক নামের এক ব্যক্তি মারা গেছে। ওই ব্যক্তি শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এদিকে, মৌলভীবাজারে শহরের শান্তিবাগ আবাসিক এলকার ব্যবসায়ী সজীব কুমার চন্দন করোনা উপসর্গ নিয়ে গেলো রাত ৮টায় মারা গেছেন। তিনি ১০-১২ দিন ধরে জ্বর-সর্দি ও গলাব্যথায় ভুগছিলেন।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন