Site icon SATV

জ্বর, সর্দি, কাশিসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে ৫ জনের মৃত্যু

জ্বর, সর্দি, কাশিসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে মৌলভীবাজার, খুলনা, চাঁদপুর, দিনাজপুর ও ময়মনসিংহে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

মৌলভীবাজারে করোনা উপসর্গ সর্দি-জ্বর-গলাব্যথা নিয়ে ইমন খান নামে এক পুলিশ কনস্টেবল মারা গেছেন। অসুস্থ থাকার কারণে সম্প্রতি তাকে নারায়নগঞ্জ থেকে গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হয়। বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা অবস্থায় তার অবস্থার অবনতি ঘটলে ২৭ এপ্রিল তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গেল রাতে মারা যাওয়া ওই পুলিশ সদস্য নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশে কর্মরত ছিলেন।

করোনা উপসর্গে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১২ মাস বয়সী শিশুর মৃত্যু হয়েছে। খুমেক হাসপাতালের আবাসিক ফিজিশিয়ান ও করোনা ওয়ার্ডের মূখপাত্র ডা. শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস বলেন, শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নিউমোনিয়ার সংক্রমণ থাকায় পরে তাকে করোনা সাসপেক্টেড আইসোলেশন ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

চাঁদপুর সদর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে করোনার উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন এক গৃহবধূ মারা গেছেন। সর্দি, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে শুক্রবার রাতে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তির দুই ঘন্টার মধ্যে গৃহবধু ফাতেমা মৃত্যু হয়।

দিনাজপুরে পাবর্তীপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজন নারীর মৃত্যু হয়েছে।পাবর্তীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ-হিল মাফি জানান, ঐ নারী কয়েকদিন থেকেই জ্বর-সর্দি-কাশি উপসর্গ নিয়ে নিজ বাড়িতেই চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে আব্দুল খালেক নামে ওই ব্যক্তি মারা যান বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা. এবিএম মশিউল আলম। তিনি জানান, গত ১৯ এপ্রিল আব্দুল খালেকের করোনা পজিটিভ হয়। কোয়ারেন্টাইনে থাকা অবস্থায় নিজ বাড়ীতেই তার মৃত্যু হয়।

Exit mobile version