জনসমাগম পরিহার করতে ডিজিটাল পদ্ধতিতে পহেলা বৈশাখ উদযাপনের নির্দেশ

0

জনসমাগম পরিহার করতে ডিজিটাল পদ্ধতিতে পহেলা বৈশাখ উদযাপনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, জনগণের সুরক্ষা নিশ্চিত করাই সরকারের প্রথম কর্তব্য। তাই করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান ছুটি সীমিত আকারে বাড়ানো হবে। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর খাদ্য সংকটসহ যাবতীয় সমস্যা নিরসনে জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দেন তিনি। সকালে, গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের ৬৪ জেলার স্থানীয় প্রশাসনের সাথে আলাপকালে এসব বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশব্যাপী চলমান সরকারি কার্যক্রম সমন্বয়ের জন্য, গণভবন থেকে ৬৪ জেলার স্থানীয় প্রশাসনের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈশ্বিক এই সংকট নিরসনে সরকারের নেয়া নানামুখী উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে, যাবতীয় নির্দেশ মেনে চলতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

করোণা সংক্রমণ প্রতিরোধে জনগণকে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী। চলমান সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ানোর পাশাপাশি যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং অফিস আদালতের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা কিছুটা শিথিল করার কথা জানান তিনি।

সভা-সমাবেশ ও জনসমাগম এড়াতে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান ডিজিটাল আকারে করার পরামর্শ দেন শেখ হাসিনা।

গ্রামের ছিন্নমূল ও হতদরিদ্র জনগণের দোড়গোড়ায় খাদ্যসহ যাবতীয় সহযোগীতা পৌছে দিতে স্থানীয় প্রশাসন ও জন প্রতিনিধিদের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

গুজবে কান না দিয়ে সাহসের সাথে করোনা সংকট মোকাবিলার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী। চলমান সংকটকে পুঁজি করে কেউ দুর্নীতি বা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালালে, কাউকে ছাড় দেয়া হবে না বলেও কঠোর হুশিয়ারি দেন শেখ হাসিনা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন