চাহিদার তুলনায় সরবরাহের ঘাটতির কারণে পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা

0

পেঁয়াজের দাম দাম বাড়ার পেছনে খুচরা ব্যবসায়ীরা পাইকারদের দুষলেও, তাদের দাবি চাহিদার তুলনায় সরবরাহের ঘাটতির কারণে বাজারে অস্থিরতা। সংকট দেখিয়ে অধিক মুনাফা লুটে নেয়া ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভাঙতে মাঠে নেমেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। সাধারণ মানুষের দাবি, নিত্যদিনের পণ্যটির ক্ষেত্রে সরকারি তদারকি বাড়াতে হবে।

দেশে পেঁয়াজের চাহিদা বছরে ২৬ লাখ টন। এর মধ্যে স্থানীয় উৎপাদন ১৮ লাখ টন। বাকি ৮ লাখ টন চাহিদা পূরণে আমদানি করতে হয়। প্রতিবেশি ভারত থেকে আসে এর সিংহভাগ। তিন মাস আগে ভারত পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য দ্বিগুণ করে। তখনই শুরু হয় বাজারে অস্থিরতা। আর রফতানি বন্ধের ঘোষণার পর তা চলে যায় নিয়ন্ত্রণের বাইরে। দাম রেকর্ড ছাপিয়ে উঠে কেজি প্রতি ২২০ থেকে আড়াইশো টাকায়।

এতো চড়া মূল্যের কারণে পেঁয়াজ সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। দাম ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রাখতে বাজার মনিটরিংয়ের দাবি সাধারণ মানুষের। যাদের কারণে বাজারে অস্থিরতা-তাদেরও শাস্তি চান তারা।

অলি গলির দোকান থেকে শুরু করে, ঢাকায় পেঁয়াজের পাইকারি আড়ত শ্যামবাজার পেঁয়াজে ঠাসা। তবুও সংকট দেখিয়ে অতিরিক্ত দাম হাকাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। জানতে চাইলে ক্ষোভ ঝাড়লেন তারা।

পেঁয়াজের সিন্ডিকেট ভাংতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর মাঠে নেমেছে। শুরু হয়েছে পুলিশ ও প্রশাসনের নজরদারি। শীঘ্রই দাম কমে আসবে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন