ঘরে ফিরতে পারছেন না বাঁধ ও পাকা সড়কে আশ্রয় নেয়া হাজারো পরিবার

0

কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও, ঘরে ফিরতে পারছেন না বাঁধ ও পাকা সড়কে আশ্রয় নেয়া হাজারো পরিবার। কারো ঘর-বাড়ি থেকে এখনও পানি পুরোপুরি নেমে যায়নি। আবার, কারো কারো ঘর-বাড়ি হয়ে গেছে ক্ষতিগ্রস্থ। এ অবস্থায় পলিথিনের তাবুর নীচে খেয়ে-না-খেয়ে দুর্বিষহ দিন কাটছে তাদের।

প্রায় দেড় মাস আগে শুরু হওয়া বন্যায় তলিয়ে যায় কুড়িগ্রামের নদ-নদী অববাহিকার চার শতাধিক চরাঞ্চলের ঘর-বাড়ি। পানিবন্দি হয়ে পড়ে সাড়ে চার লক্ষাধিক মানুষ। বন্যার পানির তোড়ে ঘর-বাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় কয়েক হাজার পরিবার গবাদি পশু নিয়ে আশ্রয় নেয় পাকা সড়ক ও বাঁধে। সামান্য ত্রাণ সহায়তার উপর নির্ভর করে পলিথিনের তাবুর নীচে অতি কষ্টে দিন কাটছে তাদের।

করোনা আর বন্যায় কর্মহীন জীবনে তাদের খাদ্য সংকট চরমে। পানি নেমে গেলেও ক্ষতিগ্রস্থ ঘর-বাড়ি মেরামতের টাকা নেই তাদের। সরকারি-বেসরকারি সহায়তার দিকে তাকিয়ে আছে তারা।

বন্যা পরবর্তী এই সময়টাতে ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসন জরুরি বলে মনে করেন, এই জনপ্রতিনিধি। দীর্ঘ বন্যায় ক্ষয়-ক্ষতির তালিকা করে পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেয়ার কথা জানান, জেলা প্রশাসক। জেলার বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা চালু রাখার পাশাপাশি শিগশিগি পুনর্বাসনের দাবী জানিয়েছেন, ভুক্তভোগীরা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন