করোনা উপসর্গে ৭ জেলায় ১২ জনের মৃত্যু

0

করোনা উপসর্গে কুমিল্লায় ৪ জনসহ ৭ জেলায় ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

২৪ ঘন্টায় কুমিল্লায় জ্বর, সর্দি, শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গে ৪ জন মারা গেছে। মৃত ৪ জনের মধ্যে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে একজন এবং আইসোলেশন ওয়ার্ডে বাকি তিনজন চিকিৎসাধীন ছিলেন।

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় করোনা উপসর্গে একজন মারা গেছে। কুলাউড়ার হাজিপুর ইউনিয়নের পাইকপাড়া বাজারে ডাক্তার দেখাতে গিয়ে গেলো রাত ৮টার দিকে ওই ব্যক্তি স্থানীয় বাজারেই হঠাৎ মাটিতে লুটিয়ে পড়ে মারা যান।

ময়মনসিংহের ভালুকায় জ্বর, গলাব্যথা ও শ্বাসকষ্টের মত করোনার উপসর্গ নিয়ে মজিবুর রহমান নামে এক বৃদ্ধের মৃত্য হয়েছে। নিহত মজিবুর রহমান ডায়াবেটিকসের রোগী ছিলেন। বেশকিছু দিন যাবত জ্বর, গলাব্যথা ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বাড়ীতেই চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে সৈয়দ শাহনেওয়াজ নামে এক দন্ত চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। ভোর পাঁচটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে তিনি মারা যান।

মেহেরপুরের গাংনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে আফেল আলী নামে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। সকালে তিনি মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি হন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। সরকারী এ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় নিয়ে যাবার পথে গাংনীতে পৌছার আগেই তার মৃত্যু হয়।

কুষ্টিয়ায় করোনা উপসর্গে এক ব্যবসায়ীসহ দু’জন মারা গেছেন। ভেড়ামারা শহরের বুলবুল ইলেক্ট্রনিক্সের স্বত্বাধিকারী বুলবুল আহমেদ ৭ দিন ধরে সর্দি, কাশি, জ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। এদিকে, শহরের কোর্টপাড়া এলাকার বৃদ্ধা রিজিয়া পারভিন শনিবার রাতে তীব্র শ্বাসকষ্টে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তির পর দুপুরে মারা যান।

এছাড়া বরিশালে করোনা উপসর্গ নিয়ে আরো দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন