করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ও নাট্যব্যক্তিত্ব আলী যাকের

0

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ও নাট্যব্যক্তিত্ব আলী যাকের। শুক্রবার ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। তার হৃদরোগসহ বার্ধক্যজনিত কিছু শারীরিক জটিলতাও ছিল। এর মাঝে করোনা টেষ্টের ফলাফল পজিটিভ আসে। দিনভর ভক্ত অনুরাগীদের শ্রদ্ধা শেষে বিকেলে বনানী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়েছে গুণী এই নাট্য-ব্যক্তিত্বকে। তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিশিষ্ট অভিনেতা, নাট্য ও সাস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এবং স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দসৈনিক আলী যাকের। ১৯৭২ সালের আরণ্যক নাট্যদলের ‘কবর’ নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে নাট্যাঙ্গনে পথচলা শুরু করেন তিনি। মঞ্চের পাশাপাশি টিভি নাটকেও সমান জনপ্রিয়তা পান এই তারকা। আলী যাকেরের স্ত্রী সারা যাকের, ছেলে ইরেশ যাকের ও মেয়ে শ্রিয়া সর্বজায়া। স্বনামে তারাও প্রতিষ্ঠিত নাট্য ও মিডিয়াঙ্গনে।

১৯৯৯ সালে শিল্পকলায় অবদানের জন্য আলী যাকেরকে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান একুশে পদকে ভূষিত করে বাংলাদেশ সরকার। এছাড়া বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পুরস্কার, বঙ্গবন্ধু পুরস্কার, মুনীর চৌধুরী পদক, নরেন বিশ্বাস পদক এবং মেরিল-প্রথম আলো আজীবন সম্মাননা পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

অবশেষে শুক্রবার সকালে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় না ফেরার দেশে পাড়ি জমান প্রিয় এই নাট্যব্যক্তিত্ব আলী যাকের। মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে হাসপাতালে ছুটে আসেন তাঁর নাট্যাঙ্গনের সহকর্মী, স্বজন, ভক্তনুরাগী ও শুভানুধ্যায়ীরা। এ সময় গুণী এই অভিনেতাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন তারা।

পরে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে। সেখানে গার্ড অব অনার শেষে ফুলেল শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি নাট্যাঙ্গনে তাঁর অবদানের কথা তুলে ধরেন ভক্ত-অনুরাগীরা। চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় পাশে থাকার জন্য সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তাঁর সহধর্মিনী সারা যাকের। এরপর শুক্রবার আসরের নামাজের পর বনানী কবরস্থানে সমাহিত করা হয় সকলের প্রিয় ও বাংলা নাট্যাঙ্গনের এ উজ্জ্বল নক্ষত্রকে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন