Site icon SATV

কক্সবাজারে পর্যটন ব্যবসায় ধস নামার আশংকা

কক্সবাজারে এক নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় পর্যটন ব্যবসায় ধস নামার আশংকা দেখা দিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচারে দেশের প্রধান এই পর্যটন কেন্দ্র নানাভাবে বিতর্কিত হচ্ছে। এসব অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রে পর্যটকদের বিভ্রান্ত না হতে অনুরোধ জানিয়েছেন উদ্যোক্তারা। সার্বিক নিরাপত্তায় প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েছে হোটেল মালিকরা।

পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের চিরচেনা দৃশ্য এটি। যেখানে প্রতিনিয়ত হাজারো মানুষের ঢল নামে।

দেশের প্রধান এই পর্যটন নগরীকে বিতর্কিত করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ওয়ালে “বয়কট কক্সবাজার” লিখে নানাভাবে অপপ্রচার চালাচ্ছে অনেকে। এতে কিছুটা বিভ্রান্ত হচ্ছেন ভ্রমণ পিপাসু পর্যটকরা।

সম্প্রতি এক নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ ধরনের অপপ্রচার শুরু হয়। ঘটনার পর নড়ে চড়ে বসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও। তাই অপপ্রচারের কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পর্যটক সেবিদের সংগঠন ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশন অব কক্সবাজার-টুয়াক।

এদিকে রেব-পুলিশের তৎপরতায় ইতোমধ্যে মামলার প্রধান আসামী সন্ত্রাসী আশিকসহ ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের ধরতে চলছে বিশেষ অভিযান। পাশাপাশি পুলিশের একার পক্ষে পর্যটকদের নিরাপত্তা দেয়া সম্ভব নয় জানিয়ে হোটেল-মোটেল পর্যটন ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা চেয়েছেন কক্সবাজারের পুলিশ সুপার।

কক্সবাজারের পর্যটন খাত থেকে প্রতিবছর বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আয় করে সরকার। এমন বাস্তবতায় চাঞ্চল্যকর এ ঘটনার কিছুটা বিরূপ প্রভাব পড়লে ক্ষতি হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ এই শিল্পের।

Exit mobile version