এবার কোরবানীর হাটগুলোকে স্বাস্থ্যসম্মতভাবে প্রস্তুত করা হবে

0

করোনা আতঙ্ককে বিবেচনায় রেখেই এবার কোরবানীর হাটগুলোকে স্বাস্থ্যসম্মতভাবে প্রস্তুত করা হবে বলে জানিয়েছেন এলজিআরডি মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, হাট কমানো বা বাড়ানো মুল বিষয় নয়- বরং হাটে যেন মানুষ সংক্রমিত না হয় সেটাকেই প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। এসএ টিভিকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়ে এবার কোরবানীর পশু কিনতে অনলাইন প্লাটফর্ম ব্যবহারসহ হাটে বয়ষ্ক ও শিশুদের না আসতেও অনুরোধ করেছেন।

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনে এবার ২৫টি স্থানে কোরবানির পশুর হাট বসানোর পরিকল্পনা আছে সরকারের। তবে এবার জনস্বাস্থ্য ও জনস্বার্থ বিবেচনায় অনেকেই হাট কমানো বা বাড়ানোর উভয়দিক নিয়েই আলোচনা করছেন। কেউ বলছেন, হাট বাড়লে সংক্রমণ বাড়বে, আবার কেউ বলছেন কমলেই বরং ভীড় বাড়ায় সংক্রমণ বাড়ার শঙ্কা থাকবে।  এসব বিষয় নিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর মুখোমুখি হলে তিনি জানান, হাট সংখ্যা এ মুহূর্তে জরুরী নয়। কোথাও হয়তো একটি হাট বন্ধ করে তার তিনগুণ প্রশস্ত খোলা জায়গায় হাট বসানো হতে পারে। উদ্দেশ্য মানুষের নিরাপদ দুরত্ব নিশ্চিত করা।

অনেকেই অনলাইনে পশু কেনাবেচা শুরু করেছেন, উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সেখানে দু পক্ষের বিশ্বাস আর আস্থা বজায় থাকলে করোনা মোকাবিলায় সেটিও কার্যকর পদক্ষেপ হতে পারে। এসময় হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানতে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা খুব শীঘ্রই আসছে জানিয়ে তা মানতে সবাইকে অনুরোধও জানান স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন